টানা অবরোধে কুষ্টিয়ায় প্রান্তিক মানুষের জীবনযাত্রা অচল হয়ে পড়েছে

Kushtia

Kushtia_map১৮ দলের অবরোধ কর্মসূচির টানা ৬ দিনে অচল হয়ে পড়েছে কুষ্টিয়ার যোগাযোগ ব্যবস্থাও ব্যবসা-বাণিজ্য। স্থবির হয়ে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষের  জীবনযাত্রা। দিনমজুর, শ্রমিক ও ফুটপাতের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। সবজি ব্যবসায়ীরাও প্রতিদিন লোকসান গুণছে। কুষ্টিয়া শহরে যেন ভ্যান-রিক্সাও চোখে পড়ছে না। দুরপাল্লার বাস-ট্রাক চলাচল বন্ধ রয়েছে।

১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল প্রত্যাহার ও সংলাপের মাধ্যমে নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি ও দলের শীর্ষ নেতাদের মুক্তির দাবিতে ১৮ দলীয় জোট ৩০ নভেম্বর শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সারাদেশে অবরোধের ডাক দেয়। বৃহস্পতিবার অবরোধের ৬ দিন পালিত হচ্ছে। কুষ্টিয়া শহরসহ জেলার বিভিন্ন সড়কে অবস্থান নিয়েছে অবরোধকারীরা। কুষ্টিয়া-মেহেরপুর, কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া-রাজশাহী, কুষ্টিয়া-খুলনা, কুষ্টিয়া-রাজবাড়ীসহ অন্যান্য কোনো রুটেই বাস-ট্রাক চলাচল করছে না। এতে পরিবহন শ্রমিকরা পড়েছেন বিপাকে। টানা ৬ দিন কাজ না থাকায় এসব শ্রমিকদের আর্থিক সংকটের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। কুষ্টিয়া শহরের ফুটপাতের ক্ষুদ্র  ব্যবসায়ীরাও ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। অবরোধের কারণে বাজারে ক্রেতা আসছে না।

এদিকে অবরোধের কারণে কুষ্টিয়া থেকে সবজি ব্যবসায়ীরা ঢাকায় সবজি পরিবহন করতে না পারার কারণে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে। কুষ্টিয়া থেকে প্রতিদিন প্রায় ১৫/১৬ ট্রাক সবজি ঢাকাসহ বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে নেওয়া হয়। এখান থেকে এসব ব্যবসায়ীরা সবজি চাষিদের কাছ থেকে এসব সবজি ক্রয় করে ট্রাকে করে ঢাকাসহ অন্যান্য বিভাগীয় শহরে পরিবহন করে। এতে সবজি চাষিরা যেমন লাভবান হয় তেমনি এসব ব্যবসায়ীরাও লাভবান হয়। অবরোধের কারণে সবজি পরিবহন করতে পারছেন না তারা। ঝুকি নিয়ে সবজি কিনে রাতে পরিবহনের চেষ্টা করলেও অবরোধের কবলে পড়ে আটকে যাচ্ছে সবজি পরিবাহি এসব ট্রাক। এতে অনেক সময় ট্রাকেই পচে যাচ্ছে এসব সবজি। অনেক সময় দেরিতে গন্তব্যে পৌঁছছে সবজিবাহী ট্রাক। সময় মতো বাজারে না পৌঁছানোর কারণে দাম পাচ্ছেন না তারা। এসব কারণে কুষ্টিয়ায় সবজি ব্যবসার সাথে জড়িতে প্রায় ২শ’ শ্রমিকও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। সহসা রাজনৈতিক এ সংকটের নিরসন না হলে এসব মানুষকে আরও মূল্য দিতে হবে। আর কত দিন এমন পরিস্থিতি চলবে তারও কোনো উত্তর নেই এসব মানুষের কাছে। তবে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের প্রত্যাশা দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দল রাজনৈতিক সমঝোতার মাধ্যমে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে রাজনৈতিক স্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করবে।

এআর