নরসিংদীতে জবা টেক্সটাইল মিলে দ্বিতীয় দফা আগুন

0
41
fire

Narsingdi Fire Picture 01 (2)নরসিংদীর ব্রাহ্মন্দীতে জবা টেক্সটাইল মিলের তুলার গুদামে আজ সোমবার ভোরে দ্বিতীয় বারের মতো আগুন লেগেছে। ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

স্থানীয়রা জানান, রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে হঠাৎ করে কারখানাটিতে আগুন লেগে যায়। খবর পেয়ে নরসিংদী ও মাধবদীর দমকল বাহিনীর দুটি ইউনিট রাত নয়টা থেকে প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এতে কারখানার তুলা, সুতা, মেশিনারিজ ও বিভিন্ন কাঁচামাল পুড়ে যায়। আগুন লাগার ঘটনা টের পেয়ে কারখানায় কর্মরত শ্রমিকরা নিরাপদে বাইরে বের হয়ে আসায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

পরে দ্বিতীয় দফায় আজ (সোমবার) ভোর ৫টা থেকে আবারো আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে দমকল বাহিনীর তিনটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে। কারখানার আশেপাশে পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থা না থাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যর্থ হচ্ছে দমকল বাহিনী। কারখানাটির তুলার গোডাউনে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করে দমকল বাহিনী।

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর বৈদ্যুতিক লাইন, জেনারেটরের লাইন বন্ধ করে কারখানাটিতে প্রাথমিক ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

পানি স্বল্পতার কারণে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে না পেরে পাশ্ববর্তী মাধবদী অগ্নি নির্বাপন কেন্দ্র ও শিবপুর অগ্নি নির্বাপন কেন্দ্রে খবর দেয়। কারখানার আশেপাশে পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থা না থাকায় দীর্ঘ আট ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে দুপুর দুইটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে দমকল বাহিনীর সদস্যরা।

জবা টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপক মাহামুদ হোসেন বলেন, অগ্নিকাণ্ডে কারখানার প্রায় এক হাজার টন তুলা, আড়াই শত টন সুতা, চারশত টন পরিত্যক্ত তুলা (জুট) ও ২ কোটি টাকা মূল্যমানের সাতটি অটোকোন মেশিন পুড়ে গেছে। কারখানার অবকাঠামোসহ সবমিলিয়ে প্রায় ৫০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি জানান।

জবা টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের পরিচালক মহসীন আলী বলেন, রোববার বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লাগলে কারখানার সব লাইন বন্ধ করে প্রাথমিক ছুটি ঘোষণা করা হয়। কিন্তু কারখানা বন্ধ থাকার পর পুনরায় আগুন কিভাবে লাগলো তা বুঝতে পারছি না।  এটা পূর্ব পরিকল্পিত নাশকতা হতে পারে না বলে মনে করেন তিনি।

নরসিংদী অগ্নি নির্বাপন কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রুহুল আমিন মোল্লা বলেন, পানির স্বল্পতার কারণে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে অনেক সময় লাগে। কারখানাটি বন্ধ থাকার পরও কিভাবে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

কেএফ