বৃষ্টির কারণে কিছুটা ক্ষতিতে পড়েছেন প্রকাশকরা

0
71
book fair

book fairসকাল থেকে মেঘলা আকাশ, মেঘে ঢাকা অমর একুশে গ্রন্থমেলা, গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি, হিমেল বাতাস বইছে চারিদিকে। ফাগুনের এই বিকেলে যখন মেলা জমে ওঠার কথা ঠিক তখনি  কাল বৈশাখী ঝড়ের মত এক পসলা গুড়ি বৃষ্টি এসে ম্লান করে দিল মেলার সেই দৃষ্টি নন্দিত কোলাহল। আর এ কারণেই মেলার উপস্থিতি আজ খুব কম। বৃষ্টি হওয়ার কারণে অনেক ক্ষতিতে পড়েছেন প্রকাশকরা।

আজ মেলায় মনে পড়ে মান্নাদের  কফি হাউজের সেই আড্ডা আজ আর নেই  বিখ্যাত গানের মত করে বই মেলার সেই কোলাহল আজ আর নেই, কোথায় হারিয়ে গেল কোলাহল-আড্ডা।

যদিও একটুখানি বৃষ্টি ঢাকার সব ধুলা ময়লাকে একটুর জন্য হলেও প্রশমিত করেছে। প্রতিদিনের ধুলা বালুর অবসান ঘটেছে। তার পরও বৃষ্টি সবার কাছে রীতিমত অস্বস্থির।

আজ বইমেলায় যেমনি ছিল কোলাহল মুক্ত তেমনি ছিল অনেক প্রকাশকদের স্টল বন্ধ। কেউ কেউ আবার আবহাওয়া ভাল না দেখে তাড়াতাড়ী করে স্টল বন্ধ করে দিয়েছে।

আবার সন্ধ্যা থেকেই মেলার স্টলগুলোর বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল। যেকোন দুর্ঘটনা থেকে সর্তকতার জন্য মেলা কর্তৃপক্ষ এ সিন্ধান্ত নিয়েছে বলেও জানা যায়।

মেলায় আশা ফারিহা সাবরিনা বলেন, আজ আকাশ মেঘলা থাকায় মনে করছিলাম ভাল হবে। কিন্তু এভাবে যে বৃষ্টি হবে তা বুঝতে পারিনি। এখন ভাবছি কিভাবে বাসায় যাব। আকাশের যে অবস্থা বৃষ্টি আরও নামতে পারে।

মেলায় কথা হয় জান্নাতুল ইসলামের সাথে, তার কাছে জানতে চেয়েছিলাম আজ মেলায় এসে কেমন লাগছে উত্তরে তিনি বলেন, আজ মেলায় এসেছি ভালই লাগছে। কিন্তু আকাশের অবস্থা খারাপ হওয়ায় এখন একটু খারাপ লাগছে।

তিনি বলেন, ভাবছিলাম বিকেলে আকাশের অবস্থা ভাল হবে, কিন্তু তা হল না, এখন চলে যাব।

আদর্শ প্রকাশনীর ইসমাইল হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আজ মেলায় লোকজন খুব কম হয়েছে। বেচা বিক্রিও খুব কম। আজকের বেচা-বিক্রি গতকালের অর্ধেক হয়েছে।

এসএস/সাকি