ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে, লজ্জায় আত্মহত্যা

0
45
rape

rapeঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার পিরোজপুর বারোবাজার এলাকায় বিউটি খাতুন (২০) নামে এক গৃহবধূ ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ায় লজ্জায়, অপমানে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। শনিবার সন্ধ্যায় এ ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ শনিবার রাত ৯টার দিকে গৃহবধূ বিউটির লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। বিউটির স্বামী মিঠু ও শাশুড়িসহ তিন জনের বিরুদ্ধে এ ব্যাপারে নারী নির্যাতন আইনে কালীগঞ্জ থানায় একটি মামলা হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনির উদ্দীন মোল্লা জানান, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার পিরোজপুর বারোবাজার গ্রামের ভ্যান চালক শহিদুল ইসলামের কন্যা বিউটি খাতুনের সাথে ২০১০ সালে একই উপজেলার আমবাগান গ্রামের মোহাম্মদ আলী পুত্র মিঠু মিয়ার সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের ঘরে হৃদয় মিয়া নামের একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। সংসার করার এক পর্যায়ে দেড় বছর আগে বিউটিকে সন্তানসহ তালাক দেয় মিঠু মিয়া। বিউটি তার পিতার বাড়িতে বসবাস করতে থাকে। গত জানুয়ারি মাসে পুরাতন স্বামী মিঠু মোবাইল ফোনে বিউটিকে আবারও বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে সম্পর্ক গড়ে তোলে এবং চট্টগামে নিয়ে যায়। তিনি আরও জানান, সম্ভব ধর্ষণের ভিডিওটি চট্টগামে করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়। বিউটি ঘটনাটি জানতে পেরে লজ্জায় শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে পিরোজপুর গ্রামে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে।

মৃত বিউটির বড় ভাই মো. মিঠুন ইসলাম জানান, দশ দিন আগে বিউটির সাবেক স্বামী মিঠু মিয়া বিউটিকে আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার নাম করে কালীগঞ্জ উপজেলার কোলা গ্রামে নিয়ে যায়। কোলা গ্রামের বারোভূঁইয়া মাঠে নিয়ে বিউটির আড়াই বছরের শিশু পুত্র হৃদয়ের গলায় ছুরি ধরে সাবেক স্বামী মিঠু মিয়াসহ ৬ জন তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে মোবাইলে ভিডিও চিত্র ধারণ করে ইন্টারনেটে তা ছড়িয়ে দেয়। বিউটি এ কথা জানতে পেরে লজ্জায় আত্মহত্যা করে। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ থানায় উপ-পরিদর্শক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শেখ মুজিবর রহমান জানান, ঘটনার পর থেকে বিউটির সাবেক স্বামী মিঠু মিয়া ও তার মাসহ অন্যান্য আসামিরা পালাতক রয়েছে। এই আত্মহত্যার ঘটনায় কালীগঞ্জ থানায় নারী নির্যাতন আইনের ৯ (ক)/৩০ ধারায় একটি মামলা হয়েছে (মামলা নং-৯, তারিখ ১৫/০২/২০১৪) বলে জানান। তিনি আরও জানান, ইন্টারনেট ও বিভিন্ন মোবাইলে ধর্ষণের চিত্র ধারণকারী ধর্ষকদের আটক করার জন্য পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।

এআর