বই মেলায় প্রাণের নিশ্চয়তা

0
109
rab

rabমেলায় মানুষের ঢল, চারদিকে কোলাহল, হাজারো মানুষের ভিড়ে কোথায় কী হয় বলা যায় না। তাই অমর একেুশে গ্রন্থ মেলার আয়োজক, প্রকাশক ও দর্শনার্থীদের সার্বিক নিরাপত্তাসহ যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়ানোর জন্য সব সময় পাশে থাকেন নিরাপত্তার অতন্দ্র প্রহরী আইনশৃঙ্খলাবাহিনী ।

এবার অমর একুশে গ্রন্থমেলায় রয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ, র‌্যাপিট অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স  ও ডিভির টহলরত বিভিন্ন টিম।

টিএসসি থেকে দোয়েল চত্বর, বাংলা একাডেমি থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পরতে পরতে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজর। মেলা থেকে শুরু করে মেলার চারপাশ যেন নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা।

মেলায় পুলিশ নিরাপত্তা ও সেবা:

“রক্তে মোরা বাঁধন গড়ি,  রক্ত দেব জীবন ভরি” এই স্লোগান নিয়ে অমর একুশে গ্রন্থমেলার নিরাপত্তার বাইরেও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচি হাতে নেওয়া  হয়েছে।

মেলার দায়িত্ব থাকা শাহবাগ থানার এস.আই আনারুল ইসলাম অর্থসূচককে বলেন, নিরাপত্তার জন্য বাংলা একাডেমির ও সোহরাওয়ার্দীতে মেলার  মূল গেইটের পুলিশের চেকপোস্ট রয়েছে।

এছাড়া মেলায় মেলাতে যেন কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য ইউনিফর্ম পুলিশ তাছাড়াও বিভিন্ন পোশাকে অনেক নিরাপত্তাকর্মী দায়িত্বে রয়েছেন বলে জানান মি. ইসলাম।

এছাড়া তিনি বলেন, চুরি ,ছিনতাই,পকেটমার, অজ্ঞানপার্টির মতো দুষ্কৃতকারীদের ধরতে রয়েছে সাদা পোশাকের পুলিশ।

মেলায় র‌্যাবের সেবা:

সোহরাওয়ার্দীতে মেলার মূল গেইটে র‌্যাবেরও আলাদা একটি কন্ট্রোল রুম আছে । সেখানে সার্বক্ষণিক সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে মেলা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে থাকে তারা । তাছড়া মেলায় দায়িত্বরত অনেক সদস্য টিম বেঁধে মেলার অবস্থা দেখার জন্য ঘুরে বেড়ান মেলাচত্বরে।

মেলার দায়িত্বে থাকা এস.আই নির্মল চন্দ্র মহন্ত (সিপিসি) অর্থসূচককে বলেন, মেলা পর্যবেক্ষণের জন্য মেলায় দুটি স্পেশাল টিম রয়েছে। মেলার শান্তি শৃংখলা বজায় রাখার জন্য আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি।

তিনি বলেন, এছাড়া মেলায় আগত দর্শনার্থী ও আমাদের প্রশাসনের লোকদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থাকি।

তিনি বলেন, আমরা মেলায় নিরাপত্তার জন্য মেলার দর্শনার্থী, আয়োজক, প্রকাশকসহ সবার সহযোগিতা কামনা করছে।

মেলায় ফায়ার সার্ভিসের সেবা :

মেলায় যেহেতু বই সেহেতু আগুনের ব্যাপারে একটু বাড়তি সতর্কতার প্রয়োজন রয়েছে।আর এজন্য ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স এর একটি টিম এখানে সারাক্ষণ কাজ করছে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের টিম এবার একুশে বইমেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢোকার মূল গেইটের পাশেও রয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ আজাদ জানান, মেলায় যাতে আগুন লাগে কিংবা অনাকাঙ্খিত কোনো ঘটনা  না ঘটে  সেজন্য ফায়ার সার্ভিস সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, কোন আগুন লাগা কংবা হতাহতের মত কিছু ঘটলেই আমাদের ইনফর্ম করার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানাচ্ছি ।

তিনি বলেন, পানিবাহী গাড়ি, টুহিলার ওয়াটার মিক্সড, রিজার্ভার টাঙ্কিতে পাম্পসেট সহ আরও ব্যবস্থা নিয়ে আমরা প্রস্তুত আছি যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য।

তবে তিনি মেলায় আগত দর্শনার্থীদের উদ্দেশ্য করে বলেন,আপনারা কেউ মেলায় ধূমপান করবেন না। কারন ধুমপানের এই ছোট আগুন থেকেই বৃহৎ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে।

তিনি বলেন, অন্যদিকে যারা মেলায় রাতে থাকেন তারা যেন মশার কয়েলটা সাবধানে রাখেন ।

এসএস/