হাজী মোহাম্মদ মোহসীনের প্রদর্শিত পথে এগিয়ে আসার আহ্বান

0
89
Arefin-Soddiq

Arefin-Soddiqহাজী মোহাম্মদ মোহসীন দানশীল মনোবৃত্তি আমাদের আজকের ভোগবাদী সমাজে এক অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হিসেবে কাজ করছে। তাঁর প্রদর্শিত মহৎ মানবিক পথে উদ্বুদ্ধ হয়ে সমাজের কল্যাণে এগিয়ে আসলেই সমাজ পরিবর্তন হবে বলে মন্তব্য করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি আ. আ. ম. স আরেফিন সিদ্দিক।

শুক্রবার অমর একুশে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত “হাজী মোহাম্মদ মোহসীন” শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে তিনি সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন- শুধু দানশীলতা নয়, আরবি ফরাসি-উর্দু ও ইংরেজি ভাষায় এবং ইতিহাস বীজগণিতে তাঁর অগাধ পাণ্ডিত ছিল। অনাড়ম্বর জীবনযাপনের অধিকারী হাজী মোহাম্মদ মোহসীন শিয়া-সুন্নি, হিন্দু-মুসলমান, সকলকে সমান চোখে দেখতেন।

তাঁরা আরও বলেন, মহাসিনের পূর্ণাঙ্গ পরিচয় উদ্ঘাটিত হলে শুধু ব্যক্তি মোহসিন নয় বরং আমাদের সামাজিক ইতিহাসেরও এক গরীয়ান অংশের উন্মোচন ঘটবে।

আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বিশাল সম্পত্তির আয় চিরকুমার মোহসিন নিজের সুখ-স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য ব্যয় না করে দীন-দুঃখীর দুঃখ মোচনের জন্য ব্যয় করেছেন। হুগলী-ঢাকা-চট্টগ্রাম-যশোর প্রভৃতি স্থানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বহু অর্থ দান করেছেন। মৃত্যুর ছয় বছর পূর্বে ১৮০৬ সালে একটি তহবিল গঠন করে ধর্ম ও জনহিতকর কার্যে সম্পত্তি দান করেন। মহসিন তহবিলের অর্থে ‘হুগলী মোহসিন কলেজ’ (১৮৩৬), হুগলী দাতব্য চিকিৎসালয় (১৮৩৬) এবং হুগলরি নতুন ইমামবাড়া (১৮৪৫) স্থাপিত হয়। মোহসিন তহবিলের বৃত্তির অর্থ দিয়ে হাজার হাজার ছাত্রের উচ্চশিক্ষালাভের প্রসার ঘটে।

এসএস/কেএফ