বই মেলায় শিশুদের জন্য নানা আয়োজন

0
135
Mela 14

Mela 14বাংলা একাডেমির পূর্ব দিগন্তের বই মেলার বাহির হওয়ার গেট থেকে শুরু করে নজরুল মঞ্চের আশে পাশে সর্বত্র জমে উঠেছে কচি-কাচার আসর। এখানে ছোট শিশুদের জন্য রয়েছে নানা আয়োজন। এ শিশু কর্নারে শিশুদের জন্য রয়েছে মজার মজার গল্প, কার্টুন, কৌতুক, রম্যরচনা, ঠাকুরমার ঝুলি, ভূতের গল্পসহ রকমারি সব বইা।

শিশুরা মা-বাবার সাথে ঘুরে ঘুরে দেখছে মেলার বিভিন্ন স্টল। সাথে সাথে শিশু কর্নারে মাঠে মিনা কার্টুনের সাথে ছবি তুলতেও ব্যস্ত তারা। উচ্ছলতা আর ভালো বাসার ঢেউয়ে ভাসছে শিশুরা।

আজকে ভালোবাসা দিবসে ভালোবাসার পরশে সিক্ত এসব শিশুরা মায়ের কোলে ভালোবাসার সেতুবন্ধন। এ ভালোবাসা যেন কোনো দিন শেষ না হয় এমন প্রত্যাশা আজ সকলের। সকলের ভালোবাসা হোক দেশের জন্য, মানুষের জন্য। দেশ আজ ভালোবাসাহীন ধুধু মরুভূমি। আর এই মরুভূমিকে উর্বর করতে হলে প্রয়োজন এক পশলা ভালোবাসার বৃষ্টি।  আজকে ভালোবাসা দিবসে প্রয়োজনের চেয়ে বেশি কিছু করতে উৎসুক একশ্রেণি অতি উৎসাহী তরুণ-তরুণীরা।

বাংলা একাডেমিতে শিশুদের জন্য ঝিঙে ফুল, ফুলকি বইকেন্দ্র, টোনাটোনি, ডাক, প্রিয়া প্রকাশ, আরও প্রকাশ, পাতাবাহার, কিশোর ভুবন, প্রগতি পাবলিকেশন, টইটুম্বুর, মুক্তধারা, শিশুঘর, ছোটদের বই ও বাংলাদেশ শিশু একাডেমির ছোটদের জন্য রয়েছে বিশাল সমাহার। মেলার প্রকাশকরা বলেছেন, “আমরা শিশুদের বিকাশের জন্য নিত্য নতুন শিক্ষণীয় বই নিয়ে প্রতি বছর মেলায় হাজির হই।”

এবারেব বই মেলায় ঝিঙে ফুলের প্রকাশনায় বের হয়েছে মজার মজার সব নতুন বই। এর মধ্যে- বিশিষ্ট শিশু সাহিত্যিক আলী ইমামের ছোটদের এন সাইক্লোপেডিয়া জানার আছে অনেক কিছু, এই পৃথিবীর ছেলে বেলা, আদিকালের এই পৃথিবী, জাগলো যখন প্রাণের সাড়া, সাগর তলের অবাক দেশ বই পাঠক সমাদ্রিত হয়েছে। এছাড়া সাযযাদ কাদিরের উপকথন তেপান্তর, নারিকেল কন্যা, পিটার ও তার বন্ধুরা, হারকিউলিকস ও এটলাস দৈত্য ও উত্তর আকাশের তারা গল্পগুলোও পাঠক নন্দিত হয়েছে।

মেলার শিশু কর্নার ছিল শিশুদের পদচারণায় মুখর। বই কেনার জন্য শিশুরা উৎসুক হয়ে রয়েছে। প্রতিটি স্টল ছিল শিশুদের ভিড়ে সরগরম। বাংলাদেশ শিশু একাডেমির রয়েছে নতুন কিছু শিশুদের বই- পাখির ডাকে সবাই জাগে, একাত্তরের গল্পগাঁথা, আমি রাজু, সিজন ও মাহির প্রভাতফেরি, বানর ছানা ও কৃষক ও রুমিলের দোলনা ছাড়াও মজার মজার সব গল্প কৌতুকের বই। মেলায় প্রতিটি শিশু স্টলগুলোতে শিশুদের জন্য এরকম নতুন নতুন বইয়ের সমাহার রয়েছে।

শিশুদের সর্ম্পকে বিশিষ্ট শিশু সাহিত্যিক আলী ইমান বলেন, শিশুরা আগামি দিনের ভবিষ্যৎ। তাদের সুন্দরভাবে গড়ে তোলার দায়িত্ব আমাদের সকলের। তাই গল্পের ছলে তাদের ভালো কিছু দেওয়ার চেষ্টা করছি। শিশুরা কাঁদা মাটির মতো। এদের যেভাবে গড়ে তোলা যাবে তারা সেভাবে গড়ে ওঠবে। এখনই সময় তাদের দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করে ভালো নাগরিক তৈরি করার।

মেলায় কথা হয় আনিহা, আনহার সাথে আসা তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রের সাথে। সে গল্প পড়তে বশি ভালোবাসে। তার দাদা জানালো, সে যদি গল্পের বই পায় তাহলে সে তার গোসল, খাওয়া সব ভুলে যায়।

আনহা বলে, “আমার কাছে আলী ইমাম ও হুমায়ূন আহমেদের বই বেশি ভালো লাগে। তাদের ছাড়া ভালো কোনো লেখকের ভালো বই পেলেও আমি পড়ি। পড়তে আমার খুব ভালো লাগে।

এসএস/কেএফ