অতি দ্রুত নতুন নির্বাচন চায় দেশের ৭২ শতাংশ মানুষ

0
104
DT-Image

DT-Imageদেশের অন্যতম ইংরেজি দৈনিক ‘ঢাকা ট্রিবিউন’র পাঠকদের অংশগ্রহণে এক জনমত জরিপের ফলাফলে দেখা গেছে জরিপে অংশগ্রহণকারী ৭২ শতাংশ মানুষই স্বল্পতম সময়ের মধ্যে একটি নতুন সংসদ নির্বাচন চান।

পত্রিকাটি আজ জরিপের এই ফল প্রকাশ করেছে।

গত ১৪ থেকে ১৬ জানুয়ারি এবং ৪ থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই জরিপটি অনুষ্ঠিত হয় গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনোভেটিভ রিসার্চ অ্যান্ড কনসালটেন্সি লিমিটেডের (আইআরসি) সহযোগিতায়।

বর্তমান সরকার মেয়াদের আগেই শেষ হোক এমনটা চান কি না- এই সংক্রান্ত এক প্রশ্নের উত্তরে অংশগ্রহণকারীদের ৭২% ইতিবাচক উত্তর দিয়েছেন। অর্থাৎ অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ৭২% মানুষ জানিয়েছেন যে তারা বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই নতুন নির্বাচন চান আর ৫২% মানুষ জানিয়েছেন তারা অবিলম্বে নতুন নির্বাচন চান।

৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে সন্তুষ্ট কি না এমন এক প্রশ্নের জবাবে জরিপে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক নেতিবাচক উত্তর দিয়েছেন অর্থাৎ তারা এই নির্বাচন নিয়ে সন্তুষ্ট নন। এই প্রশ্নের উত্তরে ৪১% জনগণ জানিয়েছেন, গত জানুয়ারির ৫ তারিখ অনুষ্ঠিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তারা ‘খুবই অসন্তুষ্ট’। অবশ্য ৪২% জনগণই নির্বাচনটির ব্যাপারে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে ৪৯% পাঠক হরতাল-অবরোধের মতো সাংঘর্ষিক সবধরণের কর্মসূচি অবিলম্বে বন্ধ করার পক্ষে তাদের মত প্রকাশ করেছেন।

মজার ব্যাপার হচ্ছে, ঢাকা ট্রিবিউনের সাম্প্রতিক বেশ কয়েকটি জনমত জরিপে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ এবং দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক ও ‘সাবেক’ বিরোধী দল বিএনপির পক্ষে নিজেদের মত প্রকাশ করেছেন প্রায় সমান সংখ্যক জনগণ। ৩৫.৬% জানিয়েছেন যে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য হলেও তারা আওয়ামী লীগকেই ভোট দিতেন এবং ৩৪.৮% বিএনপির পক্ষ অবলম্বন করেছেন। জরিপে এই প্রশ্নটির উত্তরে ১৪.৫% কাকে ভোট দিতেন না নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন এবং ৮.৯% পাঠক নিজেদের পছন্দ জানাতে অস্বীকার করেছেন।

প্রায় দেড় মাস আগে অনুষ্ঠিত এই জরিপ ঢাকা ট্রিবিউনের দ্বিতীয় জনমত জরিপ। এর আগে ৫ জানুয়ারির দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গত বছরের ১৫ থেকে ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ঢাকা ট্রিবিউনের প্রথম জনমত জরিপে ৭৭% জনগণ জানিয়েছিলেন যে বিএনপি ছাড়া নির্বাচন কখনোই গ্রহণযোগ্য হবে না।

আর সাম্প্রতিক জরিপটিতে ৬৩.২% পাঠক বিশ্বাস করেন যে নির্বাচন পরিচালনার জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকারই সবচেয়ে ভালো মাধ্যম আর ৫৬.১% মনে করেন যে ‘সর্বদলীয়’ সরকারের অধীনে নির্বাচনটিও সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য ছিল।

জরিপে অংশগ্রহণকারী পাঠকদের প্রায় অর্ধেকই মনে করেন যে প্রধান দুই দলের মধ্যে সংলাপের আগে জামায়াতের সঙ্গ ছাড়ার জন্য আওয়ামী লীগ যে আহ্বান জানিয়েছে তা বিএনপির মেনে নেওয়া উচিত। তবে এই মতের বিরোধীতা করেছেন জরিপে অংশ নেওয়া প্রায় এক-তৃতীয়াংশ পাঠক।

এই জরিপের সময় টেলিফোনে আইআরসি ৬০০ জন প্রাপ্তবয়স্ক নারী ও পুরুষের সাক্ষাৎকারও নিয়েছে।

এই সাক্ষাৎকারে অংশগ্রহণ করা প্রায় অর্ধেক পাঠক হরতাল-অবরোধ আর সংঘর্ষপূর্ণ এই রাজনীতিকে বর্তমান সময়ে দেশের সবচাইতে বড় সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। আর ৪১% বলেছেন, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচনই এই সময়ে দেশের জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের উপায় হিসেবে হরতাল আর অবরোধের মতো যে সাংঘর্ষিক পথ বিএনপি বেছে নিয়েছে তা চালিয়ে যাওয়া উচিত কি না এমন প্রশ্নের উত্তরে সাক্ষাৎকারে অংশগ্রহণকারী ৭৮% অর্থাৎ তিন-চতুর্থাংশ ব্যক্তি জানিয়েছেন, তারা মনে করেন অবিলম্বে এই পথ থেকে দলটির সরে আসা উচিত।

এসএসআর/কেএফ