শৈলকুপায় আওয়ামী লীগ-বিএনপি ভোট যুদ্ধ

0
88
Jhenidah Shilokupa

Jhenidah Shilokupaচতুর্থ উপজেলা নির্বাচনের দিনক্ষণ যতই ঘনিয়ে আসছে শৈলকুপার উপজেলায় ভোটের লড়াই ততই জমজমাট হয়ে উঠছে। এই উপজেলায় মোট ১২জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুটি প্রধান দলের সমর্থিত প্রার্থীদের মাঝে সরাসরি ভোট যুদ্ধ চলছে।

শৈলকুপা উপজেলা ১৪টি ইউনিয়ণ ও ১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। এই আসনে মোট ভোটার ২৪৮১১৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১২৩৭২০ জন ও মহিলা ১২৪৩৯৭ জন। মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ১১২টি। এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে শিকদার মোশাররফ হোসেন সোনা এবং বিএনপির রাকিবুল হাসান দিপু প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

আওয়ামী লীগের পক্ষে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দলের উপজেলা সাধারণ সম্পাদক শিকদার মোশারফ হোসেন। তার বিরুদ্ধে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন বিএনপির উপজেলা সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হাসান খান দীপু। এখন দুটি দল নিজ দলের প্রার্থী জয়ী করতে পুরোদমে প্রচারণা শুরু করেছে। বাড়ি গিয়ে ভোট ভিক্ষা শুরু করেছেন। সাধারণ ভোটাররা মনে করছেন শেলকুপার উপজেলা নির্বাচনে দুই দলের মধ্যে মর্যাদার লড়াই চলছে।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুটি দলে বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। আওয়ামী লীগ শামিম হোসেন মোল্লাকে দলীয় প্রার্থী করেছে। তার বিপরীতে বিদ্রোহী হিসাবে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান জাহিদুন্নবী কালু ভোট যুদ্ধে নেমেছেন। অপরদিকে বিএনপি’র দু’ জন ভাইস চেয়ারম্যান মাঠে রয়েছেন। তারা হচ্ছেন, মো. কামরুজ্জামান লিটন ও মো. কামরুল ইসলাম টিক্কার। তবে সাধারণ ভোটারদের আশা শেষ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রাথী জাহিদুন্নবী কালরুর  সাথে ভোটের লড়াই হবে বিএনপির মো. কামরুল ইসলাম টিক্কার।

এদিকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা নাসরিন লিপিকে সমর্থন দিয়েছে। মোছা. সুলতানা বুলবুলি আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন। বিএনপি’র দু’জন প্রার্থী প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। তারা হচ্ছেন, রোকসানা আক্তার ও মোছা. সেতারা আফরোজা। এক্ষেত্রে  শেষ দিনে ভোটের মাঠে লড়াই হবে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোছা. সুলতানা বুলবুলির সাথে বিএনপি’র রোকসানা আক্তারের ।

এখানে আওয়ামী লীগ-বিএনপি মনোনীত ও বিদ্রোহী প্রার্থীদের মাঝে ভোট যুদ্ধ নির্বাচনী লড়াই জমে উঠেছে। তারপরও এই প্রার্থীদের মধ্যে কে  জয়লাভ করবেন, তা দেখার জন্য ভোটারদের শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

সাকি/