আন্দোলনে ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করা হবে: গয়েশ্বর

0
121

গয়েশরগণতন্ত্র উদ্ধারে নতুন করে আন্দোলন শুরু করার কিছু নেই। বাধা আসলে যেমন কৌশল করে চলতে হয় ঠিক তেমনি গণতান্ত্রিক আন্দোলনের পথে ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করা হবে বলে জানালেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্চে ঢাকাস্ত সোনাইমুড়ী বাসী আয়োজিত সদ্য কারামুক্ত বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন এর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

বর্তমান সংসদের মন্ত্রীরা সবাই অবৈধ উল্লেখ করে তিনি বিলেন, এরা কেউই জনগণের ভোটে নির্বাচিত হননি। তাই এ সরকার পুরাপুরি অবৈধ।

আওয়ামী লীগ দেশের গণতন্ত্রকে কবর দিয়েছে মন্তব্য করে খোকন বলেন, যারা গণতন্ত্রকে কবর দিয়েছে তাদের মুখে গণতন্ত্রের কথা মানায় না। তারা  এক মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে আর আরেক মুখে গণতন্ত্রকে হত্যা করে। এরা গণতন্ত্রে শত্রু।

বিএনপির এই নেতা বলেন, ১৪৭টি আসনে কোনো নির্বাচনই হয়নি। তাই এ সংসদ অবৈধ। আর অবৈধ সংসদের এমপি-মন্ত্রীরাও অবৈধ। এদের কোনো নির্দেশ না মানার জন্য তিনি প্রশাসনকে অনুরোধ জানান।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধান বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে মাননীয় বলা যাবে না কারণ তিনি কোনো নির্বাচিত সরকারের প্রধান নন। জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে কারচুপির মাধ্যমে তিনি প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন।

হাসিনার বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, আমরা ট্রেন মিস করিনি। দিল্লী যাওয়ার জন্য আপনি একাই ট্রেনে উঠেছেন। দেশের কোনো মানুষ এই ট্রেনে উঠেনি। এ সময় তিনি এই নির্বাচনকে কুত্তা মার্কা নির্বাচন বলেও আখ্যায়িত করেন।

অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ৫ তারিখে দেশে কোনো ভোট হয়নি। এই নির্বাচনে না গিয়ে ১৮ দল দেশের মানুষকে রক্ষা করেছে। নির্বাচনের নামে আওয়ামী লীগ কি করেছে তা শুধু বাংলাদেশ নয় সারা বিশ্ববাসী জানে।

র‌্যাব-পুলিশ দেশের মানুষের উপর নির্বিচারে গুলি চালাচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, র‌্যাব-পুলিশকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করবেন না। তাদেরকে দেশে কলঙ্কিত করা থেকে বিরত থাকুন।

আব্দুর রহিম বাচ্চুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় গণতান্ত্রিক পাটির সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রমুখ।

জেইউ/