সংকট সমাধানে সুশীল সমাজের অনুরোধ, রাষ্ট্রপতির আশ্বাস

0
122
Susiljpg

Susiljpgচলমান রাজনৈতিক সংকটের সমাধান ও সব দলের অংশগ্রহণে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানে উদ্যোগ নিতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদকে অনুরোধ জানিয়েছেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। তারা বলেছেন, নির্বাচনে প্রধান বিরোধীদল অংশগ্রহণ নিশ্চিত না হলে তা দেশের গণতন্ত্রের জন্য বিপর্যয় ডেকে আনবে।

রাষ্ট্রপতি তাদেরকে তার সাংবিধানিক এখতিয়ারের মধ্যে থেকে সংকট সমাধানের উদ্যোগে সব ধরনের চেষ্টা চালাবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গণফোরাম সভাপতি ও বাংলাদেশের সংবিধানের অন্যতম প্রণেতা ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে সুশীল সমাজের একটি প্রতিনিধি দল রাষ্ট্রপতির সঙ্গে গণভবনে সাক্ষাৎ করেন। বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. আকবর আলী খান, জামিলুর রেজা চৌধুরী, আইন ও শালিস কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক এবং টিআইবির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, বিশিষ্ট আইনজীবী শাহদীন মালিক ও সুশাসনের জন্য নাগরিকের প্রধান বদিউল আলম মজুমদার।

চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে রাষ্ট্রপতির হস্তক্ষেপ কামনা করতেই তারা রাষ্ট্রপতির কাছে যান।

গণভবন থেকে বের হয়ে  তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. আকবর আলী খান বলেন, “আমরা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে চলমান রাজনৈতিক সঙ্কটের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেছি। আমাদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছি। রাষ্ট্রপতির কাছে আমরা কোনো সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দেইনি।

দুই নেত্রীর সাথে আলোচনায় বসবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে আকবর আলী খান বলেন, দুই নেত্রী তো পরষ্পর প্রতিপক্ষ, তাদের সাথে সাক্ষাৎ করে কোনো সমাধান আসবে বলে আমি মনে করি না।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দেশের এই চলমান সংকট সমাধান করতে রাষ্ট্রপতির আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই করার নেই, তবে তিনি রাষ্ট্রের প্রধান হিসেবে অনানুষ্ঠানিকভাবে প্রধানমন্ত্রীকে পরামর্শ দিয়ে দেশের এ সংকট সমাধানের উদ্যোগ নিতে পারেন।

ড. কামাল বলেন, আমরা দেশের রাজনৈতিক সংকট সমাধানে উদ্যোগ নিতে রাষ্ট্রপতিকে অনুরোধ করেছি। আমরা কোনো বিশেষ জায়গা থেকে নয় নিজ নিজ অবস্থান থেকে নিজেদের উদ্বেগের কথা রাষ্ট্রপতিকে জানাতে এসেছি। তবে আমরা আশাবাদি দেশের সংকট সশাধান হবে।

সুলতানা কামাল বলেছেন, আমরা বসে নেই, দেশের রাজনৈতিক সংকট সমাধানে কাজ করে যাচ্ছি । কাজ যেহেতু করতে পারছি তা হলে আশা করি এর একটি ভালো ফলাফল পাব। দেশের সংকট সমাধানের দিকে যাবে। আমরা আশাবাদী।

নয়ন/এআর