মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে কোনো নির্বাচন নয়: খাদ্যমন্ত্রী

0
40

kamrul Islamমেয়াদ শেষ হওয়ার আগে আর কোনো নির্বাচন সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।

মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে জনতার প্রত্যাশা আয়োজিত ‘ধ্বংসাত্মক রাজনীতি পরিহার-উন্নয়ন ও শান্তির পক্ষে দেশবাসী’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, “নির্বাচন ছেলের হাতের মোয়া কিংবা মামা বাড়ির আবদার নয় যে, চাইলেই পাওয়া যায়। সাংগঠনিক দক্ষতা দিয়ে নির্বাচন আদায় করে নিতে হয় যা বিএনপির নেই”। এ সময় তিনি যথাসময়ে আবারও শেখ হাসিনার অধীনেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান।

তিনি বলেন, “নির্বাচন কার অধীনে হলো কে নির্বাচনে গেল সাধারণ মানুষ এগুলো নিয়ে চিন্তা করে না। তারা সবসময়ই শান্তি ও উন্নয়ন চায়”।

তিনি আরও বলেন, “আন্দোলন করার মত শক্তি, যোগ্যতা ও সাহস বিএনপির নেই। তারা আউটসোর্সিং লোক দিয়ে বোমা বানিয়ে আন্দোলন পরিচালনা করে। তাই সাধারণ মানুষ তাদের আন্দোলন প্রত্যাখ্যান করেছে”। এ সময় দলীয় কার্যালয়ে রিজভী ছাড়া একটা মাছিও যায়না বলে মন্তব্য করেন তিনি।
বিএনপির আসল চরিত্র সন্ত্রাস এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, “আজকে দেশের মানুষ বিএনপির যে চরিত্র দেখতে পাচ্ছে সেটা তাদের আসল চরিত্র নয়। জনগণকে ধোঁকা দেওয়ার জন্যই তারা এই চরিত্র ধারণ করেছে”। বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে জাতি বের হয়ে এসেছে এবং সকল ঘৃণ্য মানবতাবিরোধী কর্মকাণ্ডের বিচার করা হবে বলে জানান তিনি।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এম এ করিমের সভাপতিত্বে এ সময় সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওসার, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি চিত্তরঞ্জন দাস, আ.লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক খন্দকার শাহজাহান আলম সাজু, ঢাকা মহানগর নেতা জিএম আতিক প্রমুখ।

এসএসআর