‘অর্থনীতিতে অ্যাক্সেসরিজ ও প্যাকেজিং শিল্পের অবদান বাড়ছে’

0
115

গার্মেন্টস অ্যাক্সেসরিজ ও প্যাকেজিং শিল্প বাংলাদেশের অর্থনীতির একটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্পখাত মন্তব্য করে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন,   এটি একটি আমদানি বিকল্প এবং রপ্তানিমূখী শিল্প। তৈরি পোশাক শিল্পের ব্যাক-ওয়ার্ড লিংকেজ হিসেবে জাতীয় অর্থনীতিতে এর অবদান দিন দিন বাড়ছে।

আজ বুধবার রাজধানীর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে পোশাক শিল্পের মেশিনারিজ এবং এর সহায়ক পণ্যের তিনটি আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

জাকারিয়া ট্রেড অ্যান্ড ফেয়ার ইন্টারন্যাশনাল, এএসকে ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশন প্রাইভেট লিমিটেড এবং বাংলাদেশ গার্মেন্টস্ অ্যাক্সেসরিজ অ্যান্ড প্যাকেজিং ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিজিএপিএমইএ) যৌথভাবে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করে।Garment tech

শিল্পমন্ত্রী বলেন, গার্মেন্টস্ অ্যাক্সেসরিজ ও প্যাকেজিং শিল্প শুধু দেশের চাহিদাই পূরণ করছে না, রপ্তানি আয়ের ক্ষেত্রেও উল্লেখযোগ্য অবদান রাখছে। গত শতাব্দীর আশির দশক থেকে তৈরি পোশাক শিল্পের পাশাপাশি বাংলাদেশে এ শিল্পখাত বিকশিত হতে থাকে। বর্তমানে এ শিল্পে প্রায় দুই লাখ শ্রমিক কর্মরত আছেন। এতে মূল্য সংযোজনের হার শতকরা ৪০ ভাগের অধিক এবং প্রতি বছর শতকরা ১৩ ভাগ হারে এ শিল্পের প্রবৃদ্ধি ঘটছে।

দেশে ইতোমধ্যে গার্মেন্টস অ্যাক্সেসরিজ ও প্যাকেজিং খাতে রপ্তানিমূখী প্রায় ১৩শ’ শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে জানিয়ে তিনি বলেন, প্যাকেজিং শিল্প-কারখানায় উৎপাদিত ৩০ থেকে ৩৫ ধরনের পণ্য পোশাক শিল্পে সরাসরি ব্যবহৃত হচ্ছে। অভ্যন্তরীণ চাহিদা মিটিয়ে এসব পণ্য বিদেশেও রপ্তানি হচ্ছে। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে এ শিল্পখাত থেকে প্রায় ৫.৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার পণ্য রপ্তানি হয়েছে। এর পরিমাণ আরও বাড়াতে হবে। আমদানি বিকল্প ও রপ্তানিমূখী দেশিয় শিল্প হিসেবে সরকার এ খাতের উদ্যোক্তাদের সম্ভব সব ধরনের নীতি সহায়তা দেবে।

রপ্তানি প্রবৃদ্ধির পাশাপাশি আমদানি বিকল্প পণ্য উৎপাদন এবং উৎপাদিত পণ্যে মূল্য সংযোজনের প্রতি গুরুত্ব দিতে গার্মেন্টস অ্যাক্সেসরিজ ও প্যাকেজিং শিল্পখাতের উন্নয়নে শিল্প মন্ত্রণালয় কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

আমু জানান, গার্মেন্টস্ অ্যাক্সেসরিজ ও প্যাকেজিং শিল্পখাতে দক্ষ জনবল সৃষ্টিসহ ক্যাপাসিটি বিল্ডিং এর জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় এবং ইউরোপিয় ইউনিয়নের সহযোগিতায় বাংলাদেশ ইন্সপায়ার্ড প্রজেক্টের আওতায় বিজিএপিএমইএ একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এ প্রকল্পের আওতায় দেশে গার্মেন্টস অ্যাক্সেসরিজ ও প্যাকেজিং শিল্পের জন্য একটি টেস্টিং ল্যাবরেটরি স্থাপন করা হবে। এছাড়া একটি গার্মেন্টস অ্যাক্সেসরিজ ও প্যাকেজিং ইন্সটিটিউট স্থাপনের জন্য সমীক্ষা প্রতিবেদন তৈরির কর্মসূচি রয়েছে। এসব কর্মসূচি বাস্তবায়ন হলে, এ শিল্পখাতের উৎপাদিত পণ্যের গুণগতমান এবং জনবলের দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে।

‘গার্মেন্টেক বাংলাদেশ ২০১৬’, সপ্তম ‘ইয়ার্ন অ্যান্ড ফেব্রিক সোর্সিং ফেয়ার’ এবং  সপ্তম ‘গ্যাপেক্সপো ২০১৬’ শীর্ষক তিনটি আলাদা আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীতে ৩০টি দেশের ৩০০টিরও বেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম. এ. মান্নান, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক, বিদ্যুৎ, জ্বালানি এবং খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়ের স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আনোয়ার-উল-আলম চৌধুরী, বাংলাদেশ গার্মেন্টস্ অ্যাক্সেসরিজ অ্যান্ড প্যাকেজিং ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিজিএপিএমইএ) সভাপতি রাফেজ আলম চৌধুরী প্রমুখ।

অর্থসূচক/এমএইচ