হেলথকেয়ার ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড পেল ব্র্যাক

0
156
8.Photo
8.Photoঢাকার বস্তিগুলোতে মাতৃ ও শিশুস্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দিতে পরিচালিত এক উদ্ভাবনী কর্মসূচির জন্য ব্র্যাক, ‘গ্লোবাল জিএসকে অ্যান্ড সেভ দ্যা চিলড্রেন ‘ওয়ান মিলিয়ন ডলার হেলথকেয়ার ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছে।

উন্নয়নশীল বিশ্বের ২৯টি দেশ থেকে জমাকৃত প্রায় ১০০টি আবেদন থেকে বাছাইকৃত পাঁচটি সংস্থার একটি হচ্ছে বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাক। সিয়েরা লিওনের ফ্রিটাউন বস্তিগুলোতে মানসীর আদলে একটি পরীক্ষামূলক প্রকল্প পরিচালনার জন্য পুরস্কারের অর্থ থেকে ব্র্যাক ৩ লাখ মার্কিন ডলার পাবে।

মানসী প্রকল্পের মাধ্যমে মা, পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশু ও শিশুদের সমন্বিত স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হয়। মানসী প্রকল্পে তিনটি উদ্ভাবনী দৃষ্টিভঙ্গি-সন্তান প্রসবের জন্য স্বাভাবিক ও পরিচ্ছন্ন কক্ষ, যাদের এই সামর্থ্য নেই তাদের জন্য জরুরী স্বাস্থ্যসেবার সহজলভ্যতা নিশ্চিত করা এবং আরো কার্যকর স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের লক্ষ্যে রোগীদের ডিজিটাল তথ্য সংগ্রহ সার্বিক সমাধান তৈরি করেছে।

বাংলাদেশ-ভিত্তিক এই এনজিওটি ১৯৭২ সালে তাদের কার্যক্রম শুরু করে। দেশটিতে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশু ও মাতৃমৃত্যু হার কমাতে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে সংস্থাটি। ফলে এক দশকে এ ধরণের মৃত্যুহার ৪০ শতাংশ কমেছে।

বিচারকম-লীদের মধ্যে জনস্বাস্থ্য ও উন্নয়ন বিশেষজ্ঞসহ জিএসকে’র সিইও স্যার অ্যান্ড্রু উইটি, সেভ দ্যা চিলড্রেনের চিফ এক্সিকিউটিভ জাস্টিন ফোরসিথ, ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ডায়রিয়াল ডিজিজ রিসার্চ, বাংলাদেশের ইন্টারিম এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ড. আব্বাস ভূইয়া অন্তর্ভূক্ত ছিলেন। উদ্ভাবনী প্রকল্প, বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ ও মানসীর কার্যকারিতা এবং বাংলাদেশ ও সিয়েরা লিওনের বর্ধিত শহুরে জনসংখ্যার স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ব্র্যাকের নেয়া পদক্ষেপে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন তারা।

জিএসকে বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আজিজুল হক বলেন, “উন্নয়নশীল দেশগুলোর স্বাস্থ্যসেবার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আমরা কী করতে পারি এই উদ্ভাবনী প্রকল্পটি তারই প্রমাণ এবং এই প্রকল্প সংশ্লিষ্ট সবাইকে এর স্বীকৃতি প্রদান করতে পেরে আমরা আনন্দিত। প্রকল্পটি বাংলাদেশে মা ও শিশুর জীবন রক্ষা করেছে এবং সিয়েরা লিওনে মানুষের জীবন বদলে দিতে সহায়ক।’’

ব্র্যাকের হেলথ, নিউট্রিশন ও পপুলেশন প্রোগ্রামের ডিরেক্টর ডা. কাওসার আফসানা বলেন, “মানসী প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা বাংলাদেশে যে কাজ করেছি আজ তারই স্বীকৃতি পাওয়ার আনন্দময় মুহুর্ত। পুরস্কারের অর্থের জন্য আমরা জিএসকে ও সেভ দ্যা চিলড্রেনকে ধন্যবাদ জানাই এবং এ অর্থ সাউথ-সাউথ কোলাবোরেশনে সিয়েরা লিওনের ফ্রিটাউনে প্রকল্পের কাজে ব্যবহৃত হবে।’’

লাখ লাখ শিশুর জীবন বাঁচাতে কার্পোরেট চ্যারিটির নতুন মডেল চালু করতে জিএসকে ও সেভ দ্যা চিলড্রেন এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

এসইউ