রাজশাহীতে পুলিশ-বিএনপি সংষর্ঘে মেয়রসহ আহত ২৫

0
104

বিরোধীদলের ডাকা দেশব্যাপী টানা ৪৮ ঘণ্টা অবরোধের প্রথম দিনে রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলসহ ১৮ দলীয় জোটের ২৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে এসব ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১০ জনকে আটক করেছে।

এদিকে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সন্ধ্যা ৭ টার পর থেকে পুরো মহানগরী নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক উপস্থিতির কারণে  নগরীজুড়ে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যা ৭ টার দিকে মহানগরীর দড়িখরবোনা এলাকা থেকে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল নেতৃত্বে একটি মিছিল বের হলে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে । এ সময় মেয়রসহ ১০ বিএনপি নেতাকর্মী আহত হন। সংঘর্ষকালে পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেট মেয়র বুলবুলের বাম পায়ে লাগে। বর্তমানে তিনি মহানগরীর হলিপ্যাথ ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন।

সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে মহানগরীর রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কের বহরমপুর এলাকায় রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করেন অবরোধ সমর্থনকারীরা। এ সময় নগরীতে বুধবারের আধাবেলা হরতালের সমর্থনে মিছিল বের করা হয়।

 

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ সময় নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোড়ে ও ডজনখানেক ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শতাধিক রাউন্ড টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সময় অন্তত ১০ নেতাকর্মী আহত হন।

এদিকে, একই সময়ে মহানগরীর তেলখাদিয়া এলাকায় হরতাল সমর্থনে মিছিল বের করেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। মিছিলকারীরা সড়ক অবরোধের চেষ্টা করেন এবং পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশও পাল্টা টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছোড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় ৫ জন বিএনপি নেতাকর্মী আহত হন।

কমিশনার ব্যারিস্টার মাহাবুবুর রহমান জানান, বুধবারের হরতালকে কেন্দ্র করে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা মহানগরীতে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড ঘটানোর পরিকল্পনা করছে। যেকোনো নাশকতা প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সজাগ রয়েছে।

এআর