ভারতে মার্কিন কূটনীতিকের বিরুদ্ধে গৃহপরিচারিকে ঠকানোর অভিযোগ

0
79
dollar

dollarকূটনীতিক নিয়ে ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধের পালে আবার নতুন হাওয়া লেগেছে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র সরকার ভিসা জালিয়াতির অভিযোগে দেশটিতে নিয়োজিত ভারতীয় কূটনীতিক দেবযানীকে বহিস্কার করে। কেবল বহিস্কারই না সে সময়  তাকে ভিসা জালিয়াতি ও গৃহকর্মীকে ঠকানোর অভিযোগে  দেবযানীকে আটককের পরে বিবস্ত্র করে তল্লাশি চালানো হয় বরেও গুজব ওঠে।পরে অবশ্য দেবযানী দেশে ফিরে আসেন।

কিন্তু ওই ঘটনা দেশ দুইটির মধ্যে সম্পর্কে যে ফাটল ধরায় তার রেশ এখনও নানা ভাবে প্রকাশিত।

তবে এবার যেন সমানে সমান প্রতিশোধ নেওয়া সুযোগ পেয়েছে ভারত। সম্প্রতি দেশটির মুম্বাইতে নিযুক্ত এক মার্কিন কূটনীতিকের বিরুদ্ধে তার গৃহপরিচারিকে ঠকানোর অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানানো হয়েছে ভারতে বসে নিজেদেরই আইন ভাংছেন মুম্বাইতে নিয়োজিত যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিক। সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে ফিলিপাইনি কাজের মেয়েকে স্বল্প মজুরি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে স্বল্প মজুরির পরিমান যেখানে ৭ দশমিক ২৫ ডলার সেখানে ভারতের মুম্বাইতে নিয়োজিত যুক্তরাষ্ট্রের কুটনীতিক তার কাজের মেয়েকে ঘণ্টায় ৩ ডলারেরও কম মজুরি দেন।

এর আগে স্বল্প বেতনের অভিযোগের ভিত্তিতে বিশ্বকে নাড়িয়ে দেয় ভারত কন্যা কাজের মেয়ে সঙ্গীতা । তিনি ভারতের কুটনীতিক দেবযানী খোবড়াগাড়ের গৃপরিচাকা হিসাবে মার্কিন যুক্ত রাষ্ট্রে কর্মরত ছিলেন ।  এই ঘটনা নিয়ে যে তোলপাড় হওয়ার পর ভারতও তাদের দেশে নিয়োজিত মার্কিন কুটনীতিকের বিরেদ্ধে তদন্ত চালায়।

যুক্তরাষ্ট্র বলছে, মার্কিন নিয়ম অনুযায়ী তাঁর কাজের প্রেক্ষিতে ঘণ্টা প্রতি তাঁকে ন্যূনতম ২৫ মার্কিন ডলার মজুরি দেওয়ার কথা; কিন্তু দেবযানীও তার কাজের মেয়েকে ৩ মার্কিন ডলার দিতেন। তবে দেবযানীর উকিল জানান, গৃহপরিচারিকাকে চুক্তিমতোই ঘণ্টায় ৯ দশমিক ৭৫ ডলার পরিশোধ করতেন দেবযানী।

এস রহমান/