দ্বি-খণ্ডিত মেলায় হয়রান ক্রেতা-দর্শনার্থীরা

0
30
Book Fair

Book Fairসাংবাদিকরা যখন মিডিয়া সেন্টারে বসে নিউজ তৈরি করেন, তখন একটু পর পর মেলায় আগত দর্শনার্থীরা প্রশ্ন করে- “ভাই অন্যসব প্রকাশনী কোথায়? বিভাস প্রকাশনীর স্টলটা কোথায়? সারাক্ষণই এমন শত প্রশ্নের মুখোমুখী হতে হয় তাদের। যখন বলা হয়- এবারের মেলায় ওইসব প্রকাশনী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। এটা বলার সাথে সাথে তাদের চোখে মুখে যেন একধরনের বিরক্তির ছাপ দেখতে পাওয়া যায়। বাংলা একাডেমি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে একযোগে বই মেলা হওয়ায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের এরকম সমস্যা হচ্ছে।

এছাড়া  প্রতিবছর বইমেলার মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে বই মেলার মোড়ক উন্মোচন, নতুন বইয়ের প্রচ্ছদসহ মেলার নানা ধরনের প্রচারণা চালানো হতো এবারের মেলায় সেটা নেই। সরাসরি সম্প্রচার করার কথা বললেও মেলার ১০ম দিনেও তা কার্যকর করেনি মেলা কর্তৃপক্ষ। মেলা শুরুর আগের দিন এক সাংবাদ সম্মেলনের বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান এ সম্প্রচারের কথা বলেছিলেন।

এ ব্যাপারে বইমেলা পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব শাহিদা খাতুন বলেন, কিছু টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে এ সম্প্রচারটা হচ্ছে না। তবে শিগগিরই তা চালু হবে বলে জানান তিনি।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের বইমেলার বিভিন্ন স্টলের বই খুঁজতে চলে আসেন একাডেমি চত্বরে। প্রতি বছর একুশে বই মেলা বাংলা একাডেমি চত্বরে হয়ে আসলেও প্রথম বারের মতো সোহরাওয়ার্দী উদ্দান পর্যন্ত বিস্তৃত করা হয়েছে।

এবারের অমর একুশে বইমেলা বাংলা একাডেমি চত্বরে রয়েছে মূলমঞ্চ ও সরকার ও সরকার সংশ্লিষ্টদের প্রতিষ্ঠানের বইয়ের স্টল। আর বেসরকারি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানগুলোর স্টল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে।

তবে মেলায় আগত অধিকাংশ দর্শনার্থীরা বিভিন্ন বেসরকারি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের স্টলগুলো খুঁজে বেড়ান একাডেমি চত্বরে। পরে স্টল খুজে না পেয়ে দ্বারস্থ হয় মেলার তথ্য কেন্দ্রে অথবা মিডিয়া সেন্টারে।

উত্তরা সাইফুল ও সজিব মিয়া মেলার স্টল খুঁজতে খুঁজতে হয়রান হয়ে মিডিয়া সেন্টারে এসে বলেন, সময় প্রকাশনী থেকে একটা বই কিনবো কিন্তু স্টলটা খুঁজে পাচ্ছি না। পরে তাকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের কথা বললে তিনি কিছু না জিজ্ঞেস করেই ছুটলেন সেদিকে।

তার মতো বই মেলায় আগত অনেক দর্শনার্থী সোহরাওয়ার্দী অংশের বইমেলার বিভিন্ন স্টলে পছন্দের লেখকের বইটি কিনতে চলে আসেন একাডেমি চত্বরে।

যাত্রাবাড়ী থেকে আসা উম্মে হানী হাফসা বলেন,  ভাই মেলা কি এবার দু’টি? মিডিয়াকর্মী হারুন উত্তর দিলেন।  ভাই আমি মিজান প্রকাশনীর স্টলটি খুঁজছিলাম। হারুণের উত্তর সেটিতো সোহরাওয়ার্দীতে।

অমর একুশে বইমেলার মিডিয়া সেন্টারে এসে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সানাউল হক সজিব সাংবাদিকদের ক্লান্তস্বরে জিজ্ঞাসা করেন, ঐতিহ্য প্রকাশনীর স্টলটি একাডেমি চত্বরের কোন পাশে? সাথে ছিল তার বন্ধু সুমন।

তিনি জানান, ঐতিহ্য প্রকাশনী থেকে একটি পছন্দের বই কিনবে কিন্তু স্টলটি খুঁজে পাচ্ছি না। এ বছর মেলা প্রথম বারের মতো মেলা একাডেমি চত্বরের পাশাপাশি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের একাংশে অনুষ্ঠিত হওয়ায় নবম দিনেও তাঁর মতো মেলায় আগত অনেক দর্শনার্থী খুঁজে পাচ্ছে না তাদের কাঙ্খিত বইয়ের স্টল। মেলা দুই ভাগে বিভক্ত হওয়ায় রিতিমতো দ্বিধাগ্রস্ত হচ্ছেন শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা বইপ্রেমীরা।

অর্থসূচক.কম/এসএস