ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত অর্ধশত

0
31
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিলে মাছ ধরা নিয়ে বিরোধের জেরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ কমপক্ষে অর্ধশত লোক আহত হয়েছে। এসময় হামলাকারীরা কমপক্ষে ৪০ টি বাড়িঘর ও একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করে। গতকাল বৃহষ্পতিবার সকালে সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের সেন্দ গ্রামের লাডুর গোষ্ঠী ও সাধুর গোষ্ঠীর লোকদের মধ্যে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

 

জানা যায়, সদর উপজেলার সেন্দ গ্রামের লাডুর গোষ্ঠী ও সাধুর গোষ্ঠীর লোকদের মধ্যে স্থানীয় বার আউলিয়া বিলে মাছ ধরা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে গতকাল সকাল ৮টার দিকে সাধুর গোষ্ঠীর সাথে গ্রামের অন্য গোষ্ঠী, পার্শ্ববর্তী শিলাউর, বিরামপুর ও হাবলা উচ্চ গ্রামের কয়েক শতাধিক হামলাকারীরা রামদা, বল্লম, কিরিচসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষের বাড়িঘরে হামলা চালায়। এসময় উভয়পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। টানা প্রায় তিন ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের মহিলাসহ কমপক্ষে অর্ধশত আহত হয়। আহতদের মধ্যে আবু সায়েদ (৪৫) ও  ইমরান মিয়াকে (৩০) আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এছাড়া মুসলিম মিয়া (৩০), ইকবাল হোসেন (২২), ফরিদ মিয়া (৪৫), আবু বকর (২৩), বাহার মিয়া (৩১), মাসুক মিয়া (২৮), বিল্লাল মিয়া (২২), হাবিব মিয়া (৪৫), বিল্লাল হোসেন (৩০),দ্বীন ইসলাম (৪০), আনোয়ারা বেগম (৩৫), আক্তার হোসেন (৩০), রতন মিয়াকে (২৫) জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি ও অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
সংঘর্ষ চলার সময় ৪০টি বাড়িঘরে ব্যাপক ভাঙচুর-লুটপাট এবং সেন্দ শাহারিয়ার কিন্ডার গার্টেন নামের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর চালায় হামলাকারীরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তিন ঘন্টা পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়।

 

সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো. আবদুর রব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ‘বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।’

এসইউ