উত্তরাঞ্চলে পুলিশ ও বিজিবি পাহারায় ডিজেল পাঠানো শুরু
মঙ্গলবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » রংপুর

উত্তরাঞ্চলে পুলিশ ও বিজিবি পাহারায় ডিজেল পাঠানো শুরু

dijal১৮ দলীয় জোটের টানা ১৩১ ঘন্টার অবরোধের ফলে উত্তরাঞ্চলের ৮ জেলার পেট্রোল ও ডিজেল পাম্পগুলো তেল শুন্য হয়ে পড়েছে। জ্বালানি তেলের অভাবে আসন্ন ইরিবোরো মৌসুমের জন্য বীজতলা তৈরী করতে এবং চলতি মৌসুমে রবিশষ্য ক্ষেতে সেচ দিতে না পারায় কৃষকরা লোকসানের আশঙ্কায় পড়েছে। অপরদিকে পার্বতীপুর রেলহেড অয়েল ডিপোতে ডিজেল ও কেরোসিন মজুদ থাকলেও পেট্রোলের কোন প্রকার মজুদ নেই।

এ অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার রাত থেকে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বিপিসি’র (বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন) পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা অয়েল কোম্পানীর ‘পার্বতীপুর রেলহেড অয়েল ডিপো’ থেকে পুলিশ ও বিজিবি পাহারায় পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, নীলফামারী ও রংপুর জেলার বিভিন্ন পাম্পে ডিজেল তেলবাহী লরি পাঠানো শুরু করা হয়েছে।

রেলহেড অয়েল ডিপোতে পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাহেনুল ইসলাম ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) জিল্লুর রহমানের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ও ২ প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন করে ডিলারদের ডিজেল সরবরাহ দেওয়া হচ্ছে।

ইউএনও রাহেনুল ইসলাম জানান- উত্তরাঞ্চলের রংপুর বিভাগের পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, নীলফামারী, রংপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম ও গাইবান্ধা জেলায় এখন আমন খেতের ফসল মাড়াই চলছে। মেশিন দিয়ে ধান মাড়াই ও ইরিবোরো মৌসুমের জন্য বীজতলা তৈরী করতে এবং চলতি রবিশষ্য ক্ষেতে সেচের জন্য প্রচুর ডিজেলের চাহিদা রয়েছে। চলমান অবরোধের কারণে জ্বালানি তেল সরবরাহকারী ডিলারগণ পার্বতীপুর রেলহেড ডিপো থেকে জ্বালানি তেল উঠানো বন্ধ রাখে। ফলে এসব জেলায় জ্বালানি তেলের সংকট দেখা দিয়েছে।

এ অবস্থায় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দিয়ে গন্তব্যস্থলে তেলবাহী লরি পৌঁছে দেওয়ার আশ্বাস দিলে মঙ্গলবার রাত ১০টা থেকে  ডিলাররা তেল উত্তোলন শুরু করেছে। প্রথম অবস্থায় ৬০-৬৫ লরি ডিজেল তেল পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, নীলফামারী ও রংপুর জেলার বিভিন্ন পাম্পে পুলিশ ও বিজিবির সহায়তা  পৌঁছেনো হয়। পরবর্তীতে অবশিষ্ট তিন জেলায় একই ভাবে ডিজেল সরবরাহ করা হবে বলে তিনি জানান।

জ্বালানি তেল সরবরাহকারী ডিলার ও পার্বতীপুর শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বার্মা ট্রেডাসের মালিক রওশন আলী সরকার ও সরকার ট্রেডাসের মালিক মামুনুর রশিদ জানান, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, নীলফামারী ও রংপুর জেলায় তাদের ১৩টি ডিজেল ও পেট্রোল পাম্প রয়েছে।  প্রত্যেকটি পাম্পই ডিজেল শুন্য হয়ে পড়েছে। পেট্রোলও শূন্যের কোটায়। এ অবস্থায় কৃষকদের কথা ভেবে এবং প্রশাসন নিরাপদে তেলবাহী লরি গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ায় আশ্বাস দেওয়ায় তারা দুজনে ১৩টি লরিতে ১ লাখ ৬০ হাজার লিটার ডিজেল উত্তোলন করেছেন।

এদিকে প্রেট্রোল না পেয়ে অনেকে প্রেট্রোল চালিত যানবাহস চালাতে পারছেনা। দিনাজপুরের অনেক পাম্প বন্ধ রয়েছে। শহরের মর্ডান মোড়ে রহমান ব্রাদার্স তেলের পামটি সকাল ৬ টা থেকে বন্ধ জ্বালানী তেলের অভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে।

পার্বতীপুর রেলহেড অয়েল ডিপো ইনচার্জ শাহজাহান হাওলাদার জানান-ডিপোতে রাত ১০টা পর্যন্ত তিন কোম্পানীর মজুদ ছিল ডিজেল ৬৫ লাখ লিটার ও কেরোসিন ৬ লাখ ৪০ হাজার লিটার। পেট্রোলের মজুদ শূন্য।

তিনি আরো জানান, চট্টগ্রাম স্টেশনে রেলের তেলবাহী লরি প্রায় ১০ লাখ লিটার পেট্রোল লোড নিয়ে গত ২৫ নভেম্বর থেকে পড়ে রয়েছে। সারা দেশে রেল যোগাযোগ বির্পযয় হওয়ায় তেলবাহী লরি কবে পার্বতীপুরে আসবে তা তিনি জানেন না বলে জানান।

এসইউ

এই বিভাগের আরো সংবাদ