ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুধর্র্ষ ডাকাতি, পুলিশ কর্মকর্তাসহ আহত ৫

0
86
dakati

dakatiব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার কুটি গ্রামের শিমুল বনিকের বাড়িতে শুক্রবার গভীর রাতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে। এ সময় ডাকাতদল বাড়ির লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৫১ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ৫০ হাজার টাকাসহ প্রায় ৩০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার গভীর রাতে শিমুল বনিকের বাড়িতে ২০/২৫জনের একটি ডাকাতদল ঘরে ঢুকে পরিবারের লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। ডাকাতরা ৫১ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ প্রায় ৫০ হাজার টাকাসহ প্রায় ৩০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে।ডাকাতরা গৃহকর্তা শিমুল বণিকসহ পরিবারের লোকজনদেরকে মারধর করলে ৩জন আহত হয়। ডাকাতি করে পালনোর সময় পুলিশ ২০/২৫জনের সংঘবদ্ধ দলকে চেলেঞ্জ করলে ডাকাতরা পুলিশের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় ডাকাতরা প্রায় ৫/৬ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে। এতে কসবা থানার এসআই মোকাদ্দেস ও এএসআই উত্তম কুমার গুরুতর আহত হয়। পুলিশ ৫ ডাকাতকে আটত করতে সক্ষম হলেও বাকিরা পালিয়ে গেছে।

গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতরা হলো- উপজেলার শাহপুর এলাকার আবুল খায়ের মিয়ার ছেলে কামাল (২৮), কুটি এলাকার জামাল মিয়ার ছেলে হানিফ মিয়া (৩০), ইয়াছিন মিয়ার ছেলে জালাল মিয়া (২৮), আবু ছায়েদ মিয়ার ছেলে রাসেল (২৫) ও বিশাল ফকির (৩২)।

গৃহকর্তা শিমুল বনিক জানান, ২৮-৩০ জনের একটি সংঘবদ্ধ ডাকাতদল আমাদেরকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৫১ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও প্রায় ৫০ হাজার নগদ টাকাসহ প্রায় ৩০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

এদিকে খবর পেয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান পিপিএম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কেএফ