ভারতের লক্ষ্য পূরণে কাজ করছে বাংলাদেশ সরকার : ইকোনমিস্ট

0
117
bangla-india

20140208_ASM990দশ ট্রাক অস্ত্রমামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত অধিকাংশ আসামি বিরোধী দলের নেতা হওয়ার প্রসঙ্গে ‘অপরাধ এবং বাংলাদেশের রাজনীতি’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদনে লন্ডনভিত্তিক প্রভাবশালী সাপ্তাহিক পত্রিকা ‘দ্য ইকোনমিস্ট’ বলেছে- ভারতের ‘বন্ধুপ্রতিম’ শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশসরকার ভারতসরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী এগোচ্ছে।

এই লক্ষ্য পূরণের জন্য বিরোধী দলগুলোকে সরকার চিড়েচ্যাপ্টা করছে এমন কথাও বলা হয়েছে প্রতিবেদনটিতে।

বিরোধী দলের ওপর সরকারের এই দমননীতির কারণে দেশের গণতান্ত্রিক কাঠামো ভেঙ্গে পড়ছে বলেও উল্লেখ করে ইকোনমিস্ট।

দশ বছর আগের অস্ত্র চোরাচালানমামলা রায়ে বিরোধী দলের নেতাদের মৃত্যদণ্ডাদেশ দেওয়াকে সরকারের দমন-পীড়ন নীতি হিসেবে দেখছে তারা।

শুক্রবার প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে ভারতের বিরুদ্ধে ব্যবহারের  পাকিস্তানি গোয়েন্দাদের সহায়তায় অস্ত্রের চালানটি বাংলাদেশে আনা হয়েছিল। ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের অশান্ত আসাম রাজ্যে বিদ্রোহের সময় ব্যবহারের জন্য অস্ত্রগুলো আনার সময় বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দরে অস্ত্রের চালানটি আটক করা হয়।

চলতি বছরের ৩০ জানুয়ারি এই বিচারের রায়ে অস্ত্রপাচারের দায়ে অভিযুক্ত ১৪ জন আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায় দেওয়া হয়। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের অধিকাংশ ব্যক্তিই বিরোধী দলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতা।

উচ্চ আদালতের দেওয়া এই রায় রাজনৈতিক দিকসহ আইনি দিক থেকেও যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে। এই অভিযোগের সঙ্গে জড়ানো হয়েছে খালেদা জিয়ার ছেলে এবং বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নামও।

আছেন ভারত সরকারের ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ তালিকাভুক্ত উলফার বিদ্রোহী পলাতক নেতা পরেশ বড়ুয়া।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ভারত সরকার বাংলাদেশে এমন কোনো দলকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না যারা ইসলামের নীতি ‘অনুসরণ’ করে, বিশেষ করে ভারতের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ পাকিস্তানের ‘বন্ধু’ দল হিসেবে খ্যাত হলে তো নয়ই। পাশাপাশি, জীবিকা অর্জনের উদ্দেশ্যে ভারতে যাওয়া অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীর সংখ্যা কমাতেও বদ্ধপরিকর ভারত সরকার।

আর তাই ভারত সরকারের স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য তাদের লক্ষ্য পূরণের জন্য আওয়ামী লীগ সরকার কাজ করে যাচ্ছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।  সূত্র : ইকোনমিস্ট

এসএসআর