মেয়েদের সাজসজ্জার সকল কিছু ভ্যালেন্টাইন মেলায়

0
127
ভ্যালেন্টাইন মেলা, ধানমণ্ডি

ভ্যালেন্টাইন মেলা, ধানমণ্ডিধানমণ্ডির ডব্লিউভিএ মিলনায়তনে চলছে ভ্যালেন্টাইন মেলা। পাকিস্তান ও ভারতীয় পোশাকের পাশাপাশি দেশি পোশাক বিক্রি হচ্ছে মেলায়। তাছাড়া বিভিন্ন ডিজাইনের হস্তশিল্পসহ বুটিকস ও মনকাড়া জুয়েলারি বিক্রি হচ্ছে মেলাতে। তবে বই ও বাণিজ্য মেলার কারণে মেলাতে আসা দর্শনার্থীর সংখ্যা আশানুরুপ নয় বলে দাবি বিক্রেতাদের।

ভ্যালেন্টাইন মেলা শুরু হয়েছে গত ২ ফেব্রুয়ারি রোববার থেকে চলবে ৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

কথা হয়, ফারিনাস লেবাস কালেকশন মালিক শাহানা আখির সঙ্গে। তার স্টলে বিক্রি হচ্ছে পাকিস্তানি কুর্তি, লং ফ্রক, সিল্ক, লিলেন ও কটনসহ নানা ডিজাইনের থ্রিপিস।

তিনি জানান, পাকিস্তানি কুর্তি বিক্রি হচ্ছে ১৬০০ থেকে ৩৫০০ টাকা দরে। লং ফ্রক ১৬০০ থেকে ২ হাজার টাকা, সিল্ক ২০০০ টাকা, লিলেন ২৫০০ টাকা, কটন থ্রিপিস ১২০০ থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। তাছাড়া পাকিস্তানি শামুজ বিক্রি হচ্ছে ৭ হাজার টাকা দামে।

তিনি জানান, বাণিজ্য মেলা চলার কারণে এখানে দর্শনার্থীর সংখ্যা কম। তবে প্রথম দিন থেকে বিক্রি হচ্ছে। আশা করছি শেষ দিনেও বিক্রি ও দর্শনার্থীর সংখ্যা আরও বাড়বে। তবে আবারো হরতাল-সংহিসতা হলে মানুষ বাইরে কম আসবে বলে মনে করেন তিনি।

আর শেষ দুই দিন একটু বেশি বিক্রির আশা করছেন শালু স্টলের ব্যবস্থাপনা সহকারি তামান্না ইসলাম অলি। তিনি দেশিও বুটিকস, হাতে অ্যামব্রয়ডারি করা বিভিন্ন ডিজাইনের থ্রিপিস, পাটের ব্যাগ, বিছানা চাদর, নকশি কাথা বিক্রি করছেন।

তিনি জানান, বাণিজ্য মেলার মাসে শুক্র ও শনিবার বিক্রি কমে যায়। তবে শেষ দুই দিন বিক্রি বেশি হবে বলে মনে করছেন তিনি।

ভ্যালেন্টাইন মেলাআমায়া ফ্যাশন হাউসের বিক্রেতা আবিদা সুলতানা থ্রিপিস বিক্রি করছেন। তিনি বলেন, পাকিস্তানি থ্রিপিস হাজিবাগ ১৫০০ থেকে ১৬০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। আলিসান, আলকারা, সুমন আয়েশা ও জমজম ১৪০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। তাছাড়া প্যারিস লিলেন ২৫০০ টাকা, ক্যামব্রিক কটোন ২২০০ টাকা ও পাকিস্তানি কুর্তি বিক্রি হচ্ছে ১৬০০ টাকা দরে।

আর দুরি ফ্যাশনের বিক্রি হচ্ছে নানা ডিজাইনের ভারতীয় ও পাকিস্তানি থ্রিপিস। বিক্রেতা জারিন আফরিন খান জানান, মেলাতে ভালো মানের পোশাকের চাহিদা বেশি রয়েছে। আশা করছি শেষ দুই দিনে বিক্রি আরও বাড়বে।

তার স্টলে ভারতীয় জয়পুরি বিক্রি হচ্ছে দেড় হাজার থেকে দুই হাজার টাকার মধ্যে। হাতে অ্যামব্রয়ডারি করা বিভিন্ন ডিজাইনের ভারতীয় থ্রিপিস ২ থেকে ৩ হাজার টাকা, জরজেট ফ্রক ৩ থেকে ৮ হাজার টাকা, কটোন থ্রিপিস বিক্রি হচ্ছে ১০০০ থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত।

তাছাড়া পাকিস্তানি আরকপি ১৮০০ টাকা, জমজম ১৬০০টাকা, আলিসান ১৬৫০ টাকা, কটোন হাট্টা দেড় হাজার টাকা। অন্যান্য থ্রিপিস বিক্রি হচ্ছে ৩ থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত।

এছাড়া বিভিন্ন স্টলে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন মানের বুটিকস, জুয়েলারি ও প্রসাধনী সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে।