একই পাত্রে খাবার গরম ও ঠান্ডা থাকবে

0
168
বাণিজ্য মেলা

বাণিজ্য মেলাএকই পাত্রে গরম খাবার গরম আর ঠাণ্ডা খাবার ঠাণ্ডা থাকবে। পাত্রটিতে খাবার রাখলে তা ৮-১০ ঘণ্টা পর্যন্ত গরম থাকে। আর এতে খাবারের পুষ্টিগুণও বজায় থাকে। আবার এতে বরফ রাখলে তা ১০-১২ ঘণ্টা পর্যন্ত গলবে না। এছাড়া এতে রয়েছে দুইটি চেম্বার। ফলে এক সাথে ভাত ও তরকারি রান্না করা যাবে।

বিদ্যুৎ বা গ্যাস ছাড়াই মাত্র পাঁচ মিনিটেই ভাত রান্না করা যাবে পাত্রটিতে। এসব কিছুই সম্ভব একটি ড্রিম পটে।

আর এই অত্যাধুনিক পাত্রটি বাজারজাত করছে বাংলাদেশের অন্যতম সেরা কোম্পানি গোল্ডেন সন লি.। বাণিজ্য মেলায় ২৭ নং প্যাভিলিয়নে এটি পাওয়া যাচ্ছে।

পাত্রটির বিশেষ গুণ হল রান্নার কাজে অর্থ, সময় ও পরিশ্রম কমাবে পাত্রটি। তবে এক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে শুধু ফুটন্ত পানি।

একই পরিমাপের ২ পট চাউলের সাথে ৪ পট ফুটন্ত গরম পানি দিয়ে পাত্রের ঢাকনা আটকে দিলে ৫ মিনিটেই ভাত রান্না হয়ে যাবে।

পাত্রটি সম্পর্কে প্যাভিলিয়নে দায়িত্বরত ইনচার্জ মো. শাহিন অর্থসূচককে বলেন, ৫ থেকে ৬ সদস্যের পরিবারে এ ধরণের ২টি পাত্র থাকলে রান্নার জন্য বাসা-বাড়িতে কোন কাজের লোক রাখতে হয়না। এতে প্রয়োজন হয় না বিদ্যুতের। তাছাড়া বাসা বাড়িতে নারীদের রান্না-বান্নার কাজের বিরক্তি দূর করতে ড্রিম পটটি বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

তিনি বলেন, এই পাত্রে রান্না করতে বিদ্যুৎ কিংবা গ্যাসের প্রয়োজন হয়না তাই খাবার পুড়ে যাওয়ারও কোনো ভয় থাকে না।

এছাড়া পাত্রটি ফ্রিজের মতও কাজ করে জানিয়ে তিনি বলেন, বরফ রাখলে কমপক্ষে ১২ ঘণ্টার আগে তা গলবে না। যে কোনো খাবার মজুদ করেও রাখা যাবে পাত্রটিতে।

প্রথম বারের মত বাংলাদেশে কেবল গোল্ডেন সন কোম্পনি এই অত্যাধুনিক পাত্র তৈরি করেছে। তবে এ পাত্রগুলো এখনও বাংলাদেশে বিক্রি করেনি তারা। শুধু বাহিরের দেশে রপ্তানি করা হয়।

তিনি বলেন, তাইওয়ানের যন্ত্রাংশ বাংলাদেশে এনে জার্মান টেকনোলজিতে এটি তৈরি করা হয়। বাংলাদেশে এটি এখনও বাজারজাত করা হয়নি। তবে শিগগিরই এটি সাশ্যয়ী মূল্যে দেশে বিক্রি শুরু হবে বলে জানান তিনি।

কোম্পানিটি তিন সাইজের পাত্র এনেছে মেলায়। পাত্র তিনটি হল ৩লি., ৫লি. ও ৬লি. ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন। মেলা উপলক্ষ্যে পাত্রগুলোর দামও কমানো হয়েছে। ৩লি. পাত্রের দাম ৮ হাজার মেলায় দাম ৩ হাজার টাকা, ৫লি. পাত্রের দাম ১০ হাজার মেলায় দাম ৪ হাজার ৪’শ টাকা। আর ৬লি. পাত্রের দাম ১২ হাজার কিন্তু মেলা উপলক্ষে রাখা হচ্ছে ৪ হাজার ৮’শ টাকা।

পাত্রগুলোর সাথে আলাদা স্ট্রিম রয়েছে। এর সাহায্যে বাঁফা পিঠা তৈরি করা যাবে। এছাড়া ডিম বা আলু জাতীয় খাবার সিদ্ধ করার জন্য রয়েছে প্লাস্টিকের এগ ফোক্সার।

ড্রিম পটের পাশাপাশি কোম্পানিটি গ্রীন পাওয়ার নামের নতুন একটি সোলার নিয়ে এসেছে এবারের মেলায়। সোলারটি ৫ ভোল্টের।সাথে রয়েছে ৩ দশমিক ৭ ভোল্টের একটি লিথিয়াম ব্যাটারি। ব্যাটারির উপরে রয়েছে ৩ ওয়াটের একটি বাল্ব। এর সাহায্যে বাসা-বাড়িতে বিদ্যুৎ ছাড়াই বৈদ্যুতিক বাতি জ্বালানো যাবে।

সোলারটির সাথে রয়েছে ১১টি সেল। সেলগুলোর সাহায্যে এটি সূর্য থেকে তাপ শোষণ করে। এর ফলে সোলারটির সাথে লিথিয়াম ব্যাটারিটি চার্জ হয়। একবার চার্জ দিলে একটি বাল্বটি জ্বলবে ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা পর্যন্ত।

এছাড়া এর মাধ্যমে মোবাইল কিংবা টর্চ লাইটও চার্জ দেওয়া যাবে। আর ওয়ারেন্টি দেওয়া হয়েছে ১০ বছরের।

মেলা উপলক্ষে লেনটার্নসহ সোলারটির দাম রাখা হচ্ছে ৩ হাজার টাকা কিন্তু মূল দাম ৪ হাজার টাকা। মডিউলসহ সোলারটির দাম রাখা হচ্ছে ৩ হাজার টাকা আর সাধারণ দাম হল ৩ হাজার ৫’শ টাকা। আর টর্চসহ সোলারটির দাম ২ হাজার টাকা। মেলা ছাড়া দাম ৩ হাজার ৩’শ টাকা।

সাকি/