৯ ফেব্রুয়ারি সিএসইতে চালু হচ্ছে আইপিও ইনডেক্স

0
83
CSE
সিএসই লোগো

CSEনতুন কোম্পানিগুলোকে নিয়ে ৯ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই)  চালু হচ্ছে প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিও ইনডেক্স। ইনডেক্স চালু করার আগে ৫ ফেব্রুয়ারি পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) আইপিও ইনডেক্স সম্পর্কে দেখানো হবে। আজ সোমবার বিএসইসির কর্মকর্তাদের সঙ্গে সিএসই’র সভাপতি আল মারুফ খান বৈঠক করেন। ওই বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জানা যায়, তালিকাভুক্ত নতুন কোম্পানিগুলো আইপিও ইনডেক্সে থাকবে । যার মেয়াদ হবে দুই বছর। দুই বছর পর এ কোম্পানিগুলোকে আবার মূল ইনডেক্সে যুক্ত করা হবে।

আজকের বৈঠকের বিষয়ে সিএসই’র সভাপতি আল মারুফ খান জানিয়েছেন, চলতি মাসের ৮ তারিখে সিএসইতে আইপিও ইনডেক্স চালু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ওই দিন বিএসইসির সাথে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বৈঠক থাকায় তা আমরা একদিন পর (৯ ফেব্রুয়ারি) চালু করছি।

জানা যায়, ২০১৩ সালের ৩১ জানুয়ারিকে ভিত্তি বছর এবং ১ হাজার পয়েন্টকে ভিত্তি সূচক ধরে  বিএসইসিতে একটি প্রস্তাব দিয়েছে সিএসই।

বিনিয়োগের সুবিধার্থে কোম্পানির কর্মক্ষমতা, মূল্য ওঠানামা এবং গতিবিধি বোঝার লক্ষে এই আইপিও ইনডেক্স গঠনের উদ্যোগ নেয় সিএসই কর্তৃপক্ষ। এ ইনডেক্সের নামকরণ করা হয়েছে সিএসইআইপিওএক্স।

সিএসইর সূত্রে জানা গেছে, দাখিলকৃত প্রস্তবনায় আইপিও ইনডেক্স নাম দেয়া হলেও সংকেতিক নাম স্বরূপ ইন্ডেক্সেটির নামকরণ করা হয়েছে-সিএসইআইপওক্স। এই ইনডেক্সের আওতায় সব সময় সর্বনিম্ন ১০টি কোম্পানি রাখা হবে। ইনডেক্সে যে কোনো আইপিও বাজারে আসার প্রথম দিনের পর থেকে দুই বছরের জন্য সূচকে অন্তর্ভুক্ত থাকবে। ইনডেক্সটি বছরে দুইবার পর্যালোচনা করা হবে। রিয়েল টাইম বা বাস্তব সময়ের ওপর ভিত্তি করে গণনা করা হবে এই সূচক। এছাড়া প্রতিটি লেনদেন শূন্য সময় থেকে আপডেট হবে এবং অনলাইন ট্রেডিং সিস্টেমের মাধ্যমে সিএসইর ওয়েবসাইটে প্রকাশ হবে। আর ৩ মিনিট পর পর ওয়েবসাইট আপডেট হবে। ইনডেক্স ম্যানেজমেন্ট কমিটি এ আইপিও ইনডেক্স গঠনের বিষয়ে সম্পূর্ণ দায়ভার বহন করবেন। এই ইনডেক্স গণনা করা হবে- (ফ্রি-ফ্লোট মার্কেট ক্যাপিটালাইজেশন অব ইনডেক্স কনসটিটুয়েন্ট/ বেজ মার্কেট ক্যাপিটালাইজেশন * বেজ ইনডেক্স ভ্যালু)

জানা গেছে, ভারতের বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে (বিএসই) এই ইনডেক্স রয়েছে। ওই স্টক এক্সচেঞ্জে ১ হাজার পয়েন্টেকে ভিত্তি ও ২০০৯ সালের ২৪ আগস্টকে ভিত্তি বছর ধরা হয়েছে। ওই ইনডেক্সের মোট মার্কেট ক্যাপিটাল ২ লাখ ৯২ হাজার ৮৮০ কোটি ৩ লাখ টাকা। বম্বের এ ইনডেক্স তৈরি করেছে রিলায়েন্স ক্যাপিটাল। এছাড়া ইস্তানবুলের স্টক এক্সচেঞ্জেও আইপিও ইনডেক্স চালু রয়েছে।

এর আগে গত বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি আইপিও ইনডেক্স গঠনের লক্ষে সিএসইর একটি প্রস্তাব জানায় বিএসইসির কাছে। ওই প্রস্তাবের আলোকে ওই বছরের ১২ মার্চ বিএসইসির ৪৭২তম কমিশন সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, সিএসইর আইপিও ইনডেক্সের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ ইনডেক্সের গুরুত্ব, বাস্তবতা, বাস্তব উদাহারণ এবং ইনডেক্স কনস্ট্রাকশন প্রসেস সম্পর্কে বিস্তারিত কাগজপত্র দাখিলের পরেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এর প্রেক্ষিতে একই বছরের ২ এপ্রিল সিএসইতে একটি চিঠি দেয় বিএসইসি। সংস্থাটির পরিচালক মো. মনসুর রহমান স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, আইপিও ইনডেক্সের গুরুত্ব, বাস্তবতা, বাস্তব উদাহারণ এবং ইনডেক্স কনস্ট্রাকশন প্রসেস সম্পর্কে বিস্তারিত কাগজপত্র ৭ কার্যদিবসের মধ্যে কমিশনে দাখিলের নির্দেশনা দেয়া হয়। যার প্রেক্ষিতে গত ১০ এপ্রিল সিএসই বিএসইসির চাহিদা মাফিক প্রস্তাবনার সব কাগজপত্র কমিশনে দাখিল করেছে।

জিইউ/