খুলনায় হাতিয়া ও ময়ূর নদীর ড্রেজিংয়ের উদ্বোধন

0
74
mayor 3-2

mayor 3-2খুলনায় প্রায় ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে হাতিয়া ও ময়ূর নদীর ড্রেজিং কাজ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার সকাল ১১টায় খুলনা সিটি কর্পোরেশনের (কেসিসি) মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান নগরীর লবণচরার আলুতলা দশভেন্ট গেটে এ কাজের উদ্বোধন করেন।
খুলনা মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসণকল্পে কেসিসির নগর অঞ্চল উন্নয়ন প্রকল্প এ কাজ বাস্তবায়ন করবে।
প্রকল্পের আওতায় ময়ূর নদীর ৫ হাজার ৯০০ মিটার এবং হাতিয়া নদীর ৫ হাজার ৭৯৬ মিটার ড্রেজিং করা হবে। সিলেটের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জামিল ইকবাল (জেভি) ময়ূর নদী খনন কাজে ৫ কোটি ৭৮ লক্ষ ৫১ হাজার ১৭০ টাকা এবং হাতিয়া নদী ৮ কোটি ৭৪ লাখ ১৭ হাজার ৮৯৩ টাকা চুক্তিতে আগামি ৪ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখের মধ্যে খনন কাজ সম্পন্ন করবে।
ড্রেজিং কাজ উদ্বোধনকালে মেয়র বলেন, জলাবদ্ধতার কারণে নগরবাসীর বসবাস ও চলাচলে দুর্ভোগ সৃষ্টিসহ রাস্তা ও ড্রেনের স্থায়িত্ব হ্রাস পায়। সে জন্য নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসণের কাজ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।
আধুনিক নগর জীবনের স্বাচ্ছন্দ্য ফিরিয়ে আনতে এ প্রকল্প অত্যন্ত গুরুত্ববহ উল্লেখ করে সিটি মেয়র বলেন, অবৈধ দখলদার বা সুবিধাভোগীদের অপচেষ্টায় গুরুত্বপূর্ণ এ প্রকল্পের কাজ যেন বাধাগ্রস্ত না হয় সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।
কেসিসির কাউন্সিলর মুহাম্মদ আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন প্যানেল মেয়র-১ মো. আনিসুর রহমান বিশ্বাস, নাগরিক ফোরাম-খুলনার চেয়ারপার্সন শেখ আব্দুল কাইয়ুম, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির মহাসচিব শেখ মোশাররফ হোসেন ও কেসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তপন কুমার ঘোষ।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. নাজমুল ইসলাম।
অন্যান্যের মধ্যে কেসিসির কাউন্সিলর মো. মাহবুব কায়সার, মো. গিয়াস উদ্দিন বনি, মো. শামসুজ্জামান মিয়া স্বপন, আশফাকুর রহমান কাকন, শেখ শওকত আলী, মো. মনিরুজ্জামান, মো. আলী আকবর টিপু, ইমাম হাসান চৌধুরী ময়না, কে এম হুমায়ুন কবীর, মো. ফারুক হিল্টন, মো. সাইফুল ইসলাম, মো. ইউনুস আলী সরদার, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর সাহিদা বেগম, রোকেয়া ফারুক, রাবেয়া ফাহিদ হাসনাহেনা, আনজিরা খাতুন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর শামীম মাহবুবুল হক, প্রফেসর রেজাউল করিম, প্রকল্পের ডেপুটি টীম লিডার জন স্টাপ কপার, কেসিসি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মশিউজ্জামান খান, প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ছয়ফুদ্দিন সহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি অফিসের কর্মকর্তা সহ নগরীর গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।