প্রিমিয়ার ব্যাংকের এভিপিকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

0
33
Dudak-premeir-bank-
প্রিমিয়ার ব্যাংক ও দুদকের লোগো
Dudak-premeir-bank-
প্রিমিয়ার ব্যাংক ও দুদকের লোগো

বিসমিল্লাহ গ্রুপের  ১ হাজার ১৭৪ কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির মামলার অন্যতম আসামি প্রিমিয়ার ব্যাংকের অ্যাসিসটেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট (এভিপি) (অব.) এবি এম আব্দুর রহিমকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোববার বিকেলে রাজধানীর সেগুন বাগিচা কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে দুদকের উপ-পরিচালক মাহবুবুর রহমান তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন বলে জানান কমিশনের এ কর্মকর্তা।

দুদক সূত্র জানায়, বিসমিল্লাহ গ্রুপ বিদেশে নিজেরাই ভুয়া প্রতিষ্ঠান খোলে এবং এসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করে। ওই চুক্তির কপি দেশের বিভিন্ন ব্যাংকে জমা দিয়ে বড় অঙ্কের ঋণ নেয়। গ্রুপটি ঋণের বিপরীতে বিদেশ থেকে কোনো পণ্য আমদানিও করেনি, আবার আমদানি করা কাঁচামাল দিয়ে কোনো পণ্য তৈরি করে তা বিদেশে রপ্তানিও করেনি। ফলে পুরো প্রক্রিয়াটিই সম্পন্ন হয়েছে জালিয়াতির মাধ্যমে। আর এ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তারা দেশের পাঁচটি ব্যাংক (জনতা ব্যাংক, যমুনা ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক এবং শাহজালাল ব্যাংক) থেকে এক হাজার ২’শ কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতি করে। দুদকের তদন্তে এবিএম আব্দুর রহিমসহ সবগুলো ব্যাংকের কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার প্রমাণ পায় কমিশন।

প্রসঙ্গত, বিসমিল্লাহ গ্রপের এ ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় গত ২০১২ সালের ৩ নভেম্বর ফান্ডেড ৯৯০ কোটি ৩ লাখ টাকা ও নন-ফান্ডেড ১৮৪ কোটি ৪৩ লাখ টাকা জালিয়াতির দায়ে  ৫৩ জনের বিরুদ্ধে  মোট ১২টি মামলা দায়ের করা হয়।

আসামিদের মধ্যে বিসমিল্লাহ গ্রুপের চেয়ারম্যান,এমডিসহ ১২ জন এবং জনতা ব্যাংক,প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড, প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড,যমুনা ব্যাংক লিমিটেড এবং শাহাজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের ৪০ জন উর্ধ্বতন কর্মকতা রয়েছেন। ১২ টির মধ্যে রাজধানীর মতিঝিল থানায় ৯টি, রমনা থানায় ২টি ও নিউমার্কেট থানায় ১টি মামলা দায়ের করা  হয়েছে।

দুদকের উপ-পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন, সহকারি পরিচালক মো. তৌফিকুল ইসলাম, মো. গুলশান আনোয়ার প্রধান, উপ-সহকারি পরিচালক সরদার মঞ্জুর আহমেদ ও মো. আল আমিন বাদি হয়ে মামলাগুলো দায়ের করেন।

এইউ নয়ন