‘ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলেই সিদ্ধান্ত’

0
42

Shilpo-Montronaloy-02.02.14--2

এখন থেকে ব্যবসায় ও শিল্প ক্ষেত্রের যে কোনো নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে ব্যবসায়ীদের সাথে আলোচনা করে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমার হোসেন আমু।

মন্ত্রী আজ রোববার রাজধানীর শিল্প মন্ত্রণালয়ে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) নব নির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের সাথে সাক্ষাৎকালে এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, এখন থেকে আর আগের মতো এই খাতের বিষয়ে মন্ত্রণালয় এককভাবে সিদ্ধান্ত নেবে না। বড় যে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, দেশ ইতোমধ্যে খাদ্যে স্বয়ং সম্পন্নতা অর্জন করেছে। সরকার এবার শিল্প খাতে দৃষ্টি দেবে বলে জানান তিনি। গ্যাসের চাহিদার কথা মাথায় রেখে নতুন নতুন কুপ খনন প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে। এবার বাইরের সহায়তা ছাড়া এই খনন কাজ করার চিন্তা করছেন বলেও জানান তিনি।

পাটজাত পণ্যের ব্যবহার বাড়াতে ব্যবসায়ীদের প্রতি অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, দেশে পাটজাত পণ্য ব্যবহারে ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসতে হবে। তাতে পাট শিল্প আরও এগিয়ে যাবে বলে মনে করেন তিনি।

মন্ত্রী দেশের শিল্প উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে নতুন ইপিজেড তৈরি, বিসিক নগরী নির্মাণ, পর্যটন কেন্দ্রের আধুনিকায়ন, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তাছাড়া নতুন নতুন বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোতে সফর করে ব্যবসায়িক সম্পর্ক উন্নয়ন করতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে শিল্প সচিব মোহাম্মাদ মইনউদ্দিন আব্দুল্লাহ বলেন, কোনো বড় সিদ্ধান্ত ব্যবসায়ীদের ছাড়া হবে না। তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেবে শিল্প মন্ত্রণালয়। সরকার ২০১০ সালের শিল্প নীতি অনুসারে কাজ করছে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, যে ভাবে দেশে ব্যবসাযীদের প্রবৃদ্ধি হয় সেই ভাবে কাজ করে যাবে শিল্প মন্ত্রণালয়। শিল্পের স্বার্থে যা যা করা দরকার তাই করার কথাও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে ঢাকা চেম্বার অব কমার্সের নতুন সভাপতি দেশের শিল্প খাতকে এগিয়ে নিতে কিছু প্রস্তাবনা দেন। যা বাস্তবায়ন করার বিষয়ে মন্ত্রীর পক্ষ থেকে আশ্বাসও দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রির নব নির্বাচিত সদস্যদ্বয় ও শিল্পমন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।