মালয়েশিয়ায় যেতে এখনই টাকা না দেওয়ার পরামর্শ মন্ত্রীর

ভূমধ্যসাগরে ভাসমান নৌকায় অবৈধ অভিবাসীদের একাংশ।

মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য কারও সঙ্গে কোনো ধরনের লেনদেন না করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি।

আজ মঙ্গলবার মালয়েশিয়ার সরকারি প্রতিনিধিদলের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকের পর এই পরামর্শ দেন তিনি।

ভূমধ্যসাগরে ভাসমান নৌকায় অবৈধ অভিবাসীদের একাংশ।
ভূমধ্যসাগরে ভাসমান নৌকায় অবৈধ অভিবাসীদের একাংশ।

মালয়েশিয়ায় নতুন করে লোক নেওয়ার ব্যাপারে প্রভাবশালী মহল সক্রিয় আছেন এবং তারা নানা দেনদরবার করছেন এমন অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, নোবডি ক্যান বাই মি। আমি চাই না, বাংলাদেশের লোকজন ওখানে গিয়ে পড়ে থাকবে। সে কারণে যথাযথ প্রশিক্ষণ দিয়ে লোক পাঠানো হবে।

আজ মঙ্গলবার সকালে ঢাকায় আসেন মালয়েশিয়ার প্রতিনিধি দল। তাদের সঙ্গে বৈঠকের সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এখনও কোনো কিছুই ঠিক হয়নি। কাজেই মালয়েশিয়া যেতে কেউ যেন কাউকে কোনো টাকা না দেয়।

প্রসঙ্গত, গত মে মাসে মালয়েশিয়া সীমান্তবর্তী থাইল্যান্ডের একটি জঙ্গলে পাচারকারীদের পরিত্যক্ত আস্তানায় গণকবর পাওয়ার পর আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সাগর পথে মানবপাচার নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়।

এরপর মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ড উপকূলে সাগরে ভাসমান অবস্থায় পাচারকারীদের কয়েকটি নৌকা থেকে কয়েক হাজার বাংলাদেশি ও মায়ানমারের রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করা হয়।

নির্যাতনের শিকার রোহিঙ্গারা গত কয়েক বছর ধরে সমুদ্রপথে ঝুঁকি নিয়ে মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ডে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। বাংলাদেশ থেকেও কাঠের নৌকা বা মাছ ধরার ট্রলারে করে নিয়মিত মালয়েশিয়ায় যাওয়ার চেষ্টার ঘটনা ঘটছে। এসব অভিবাসন প্রত্যাশীদের পাচারকারীরা বিপজ্জনক সমুদ্রপথে ট্রলারে করে থাইল্যান্ডে নিয়ে যান। গভীর জঙ্গলে বিভিন্ন শিবিরে তাদের আটকে পাচারকারীরা তাদের পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনাও ঘটেছে। এমনকি পাচারকারীদের নির্যাতনে প্রাণ হারিয়েছেন অনেকেই।