গরু চোরাচালানের কারণেই সীমান্ত হত্যা: বিজিবি প্রধান

bgb
বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ। ফাইল ছবি

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেছেন, সীমান্ত দিয়ে অবৈধ পথে ভারত থেকে বাংলাদেশে গরু আনার সঙ্গে সীমান্ত হত্যাকাণ্ডের একটি সম্পর্ক আছে। এই গরু চোরাচালান বন্ধ হলেই সীমান্ত হত্যা শূন্যের কোঠায় নেমে আসবে।

bgb
বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ। ফাইল ছবি

মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদের বরাত দিয়ে আজ সোমবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, সীমান্তে ভারতের কঠোর অবস্থানের কারণে গরু চোরাচালান অনেক কমে গেছে। সেইসঙ্গে সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি মৃত্যুর সংখ্যাও কমছে।

বিবিসিকে দেওয়া বিশেষ সাক্ষাৎকারে বিজিবি প্রধান বলেন, ভারত থেকে বাংলাদেশে গরু চোরাচালান সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করতে চায় ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)।

তিনি বলেন, সীমান্ত হত্যা বন্ধে ভারত থেকে গরু পাচার বন্ধ করা জরুরি। তাই দেশের গরু ব্যবসায়ীদের অনুরোধ জানাব, তারা যেন বাংলাদেশের সীমান্ত অতিক্রম না করে।

Felani
বাংলাদেশ সীমান্তের কাঁটাতার থেকে নামানোর পর এভাবেই বহন করা হয় ফেলানীর মরদেহ।

আজিজ আহমেদ বলেন, সীমান্ত দিয়ে অবৈধ এই গরু বাণিজ্যে বিএসএফ ও বিজিবির এক শ্রেণির অসাধু সদস্য জড়িত রয়েছে বলে দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। বিজিবির কেউ যদি গরু কিংবা অন্য যেকোনো ধরণের চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত থাকে, তাদেরকে সর্বোচ্চ শাস্তি ভোগ করতে হবে। এই অপরাধে বিজিবির বহু সদস্যকে চাকরি থেকে বহিষ্কার করেছি।

সম্প্রতি অবৈধ পথে ভারত থেকে বাংলাদেশে গরু প্রবেশে কঠোর অবস্থান নিয়েছে ভারত। এরপর থেকেই বাংলাদেশে গরুর মাংসের দাম বাড়ছে। গতকাল রোববার ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, বাংলাদেশে গরুর মাংসের দাম বাড়ছে। এটি আমাদের জন্য আনন্দের।