অক্সফাম ছাড়লেন হলিউড অভিনেত্রী স্কারলেট জোহানসন

0
202
Scarlett Johannson

Scarlett Johannsonসমাজসেবামূলক প্রতিষ্ঠান ‘অক্সফাম’-এর সাথে সম্পর্কের ইতি টেনেছেন ‘আয়রনম্যান-২’ খ্যাত হলিউড অভিনেত্রী স্কারলেট জোহানসন। ইসরাইলে অনুপ্রবেশ, ফিলিস্তিনিদের মৌল মানবিক অধিকার, বাণিজ্যিক বিষয়ে অক্সফামের সাথে তার মত পার্থক্য তৈরি হওয়ায় সম্প্রতি এ সিদ্ধান্ত নেন তিনি। খবর দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

খবরে বলা হয়, প্রতিষ্ঠানটির সাথে কিছু বিষয়ে  জোহানসনের মতামতের মৌলিক পার্থক্যে রয়েছে। অক্সফাম জানিয়েছে, ইসরায়েলের সাথে কোনো বাণিজ্যিক সম্পর্ক রাখবেন না, এছাড়া ফিলিস্তিনিদের অধিকারকেও স্বীকার করে না তারা । অন্যদিকে জোহানসন প্রতিষ্ঠানের এ মতের সাথে একমত নন।

তিনি জানান, সম্পূর্ণভাবে কোনো অভিযোগ ছাড়াই স্বইচ্ছায় প্রতিষ্ঠানটির গ্লোবাল অ্যাম্বাসেডর পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তিনি জানান, অক্সফামের সাথে ইসরাইল(বিতর্কিত বিষয়)-এ তার মত পার্থক্য থাকায় তিনি আর প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে কাজ করবেন না। তবে দীর্ঘ ৮ বছর ধরে কোম্পানিটির সাথে কাজ করতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করেন তিনি।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ৮ বছর ধরে অক্সফামের সাথে বিশ্বব্যাপী কাজ করেছেন এই হলিউড অভিনেত্রী। ২০০৭ সালে অক্সফামের অ্যাম্বাসেডর পদে যোগ দেন তিনি।এসময়ে  বিশ্বব্যাপী প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ দারিদ্রতার প্রভাবকে তুলে ধরতে ভারত, শ্রীলংকা, এবং কেনিয়াতে ভ্রমণ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ‘আয়রনম্যান-২’ খ্যাত এ অভিনেত্রী ১৯৮৪ সালে নিউইয়র্ক সিটির সাধারণ এক মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। মূলত মায়ের আগ্রহেই রুপালি পর্দায় পদার্পণ করেন তিনি। এরপর ১৯৯৭ সালে ‘ফল’ এবং ‘হোম এলোন-৩’ ছবিতে অভিনয় করেন। তবে ‘দ্য হর্স হুইসপার’ (১৯৯৮) ছবিতে সফল অভিনয় করে সমালোচকদের নজর কাড়তে সক্ষম হন।

এ পর্যন্ত তিনি প্রায় অর্ধশত ছবিতে অভিনয় করেছেন। স্কারলেট ২০০৭ সালে ‘দ্য ন্যানি ডায়েরিজ’ ছবিতে নিজেকে ব্যাপক খোলামেলাভাবে উপস্থাপন করে ‘আবেদনময়ী’ নারীর খ্যাতি অর্জন করেন। ২০০৫ সালে ‘১০০ সেক্সিয়েস্ট ফেমাস উইমেন’-এর তালিকায় স্থান করে নেন। ২০০৬ সালে এসকোয়ার ‘সেক্সিয়েস্ট উইমেন এ লাইভ’ হিসেবে তাকে আখ্যায়িত করে। ২০১০ সালে তার অভিনীত ‘আয়রনম্যান-২’ বক্স অফিসে ঝড় তোলে। একই সঙ্গে বছরের সেরা ব্যবসাসফল ছবি হিসেবে বিবেচিত হয় এটি।

এস রহমান/