উপজেলা নির্বাচনে সরকারি সুবিধা নিয়ে প্রচারণা চালানো যাবে না

0
113
ec

নির্বাচন কমিশনউপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও সরকারি সুবিধা নিয়ে কোনো প্রার্থী বা প্রার্থীর পক্ষে কেউ প্রচারণায় অংশ নিতে পারবে না। চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের লক্ষ্যে নির্বাচনী আচরণ বিধি সংশোধন করে  প্রকাশিত গেজেটে এ বিধান সংযোগ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।বুধবার ওই সংশোধনের গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে।

আচরণ বিধি ২২ (ক) নতুন করে সংযোজন করে বলা হয়েছে-উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়াম্যান বা মহিলা চেয়ারম্যান বা মহিলা সদস্য, বিধির ২২ ধারাতে যা কিছুই থাক না কেন, তারা পদে থাকা অবস্থায় এসব পদের কোনো একটি পদে প্রার্থী হলে মনোনয়ন দাখিলের পর থেকে ভোটগ্রহণের তারিখ পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচারণা ও নির্বাচনী কার্যক্রমে উপজেলা পরিষদের অফিস ও যানবাহন ব্যবহার করতে পারবেন না।

২২ (খ) ধারায় বলা হয়েছে, উপজেলা পরিষদ বা এর আওতাধীন কোনো ইউনিয়ন পরিষদ বা পৌরসভার কোনো কার্যক্রমে বা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।

অন্যদিকে ২২ (গ) ধারায় বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট উপজেলায় অবস্থিত কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি, আধা-সরকারি বা স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান বা সংস্থা বা এনজিওর কোনো কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।

উপজেলা নির্বাচনী আচরণবিধিতে এর আগে এ বিধান ছিল না। তাই এবারের নির্বাচনে পদে থেকে নির্বাচন করতে হলে প্রার্থীকে সরকারি প্রতিষ্ঠান, যানবাহন ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে।

এছাড়া সংশোধনে আরও নতুন করে কিছু বিধান যুক্ত করা হয়েছে, এতে ভোটারদের ভোটার স্লিপ ব্যবহারে বাধা-নিষেধ আরোপ করেছে কমিশন। বিধি-৮ পর নতুন বিধি ৮ এর ক সন্নিবেশ করে বলা হয়েছে- কোনো প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী বা তার পক্ষে কোনো ব্যক্তি ভোটার স্লিপে প্রার্থীর নাম, নিজ ছবি, সংশ্লিষ্ট পদের নাম, প্রতীক, ভোটারের নাম, পিতা বা স্বামীর নাম, মাতার নাম, ঠিকানা, ভোটার নম্বর ও ভোট কেন্দ্রের নাম ব্যতিত অন্য কিছু উল্লেখ করতে পারবেন না।

ভোটকেন্দ্রের ২০০ গজের মধ্যে ভোটার স্লিপ বিতরণ করতে হবে, যার আয়তন হবে ১২ সেন্টিমিটার বাই ৮ সেন্টিমিটার। ভোটার স্লিপে মুদ্রণকারী প্রতিষ্ঠানের নাম, ঠিকানা ও তারিখবিহীন কোনো ভোটার স্লিপ মুদ্রণ করতে পারবেন না।

প্রসঙ্গত, চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ছয়টি ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে দুইটি ধাপের তফসিল ঘোষণা করেছে ইসি। সে অনুযায়ী, প্রথম ধাপে ৯৮ উপজেলায় নির্বাচন হবে আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি আর দ্বিতীয় ধাপে ১১৭ উপজেলায় নির্বাচন হবে ২৭ ফেব্রুয়াবি। এছাড়া তৃতীয় ধাপে ৭৪ উপজেলার ভোটগ্রহণ হবে ১৫ মার্চ, চতুর্থ ধাপে ৭২ উপজেলায় ২৫ মার্চ, পঞ্চম ধাপে ৬৫ উপজেলায় ৩১ মার্চ এবং ষষ্ঠ ধাপে ৫৭ উপজেলায় ৩ মে ভোটগ্রহণ করা হবে।