“ঢং করে ‘সং’ বলার ভং থেকে বিরত থাকুন”

0
72
hasan-mahmud
বনমন্ত্রী হাসান মাহমুদ

Photo-30.01.14--1দশম সংসদের সদস্যদেরকে ‘সং’ বলা থেকে বিরত থাকতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং সাবেক বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নাজিমউদ্দিন মিলনায়তনে আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়ার নবম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, “সংসদ সদস্যদেরকে ঢং করে সং বলার ভং বন্ধ না করলে নিকট ভবিষ্যতে বিএনপি বহু দলে-উপদলে বিভক্ত হয়ে যাবে”।

তিনি বলেন, “গতকাল বিএনপিবিহীন একটি প্রাণবন্ত সংসদ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিএনপির এই সর্বনাশ হয়েছে তাদের অসৎ জামায়াতের সঙ্গ দোষে। জামায়াতের নির্বাচনী যোগ্যতা না থাকার কারণেই বিএনপি নির্বাচনে আসেনি”।

বিএনপি প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানই বাংলাদেশে হত্যার রাজনীতি শুরু করেছেন এমন অভিযোগ করে সাবেক মন্ত্রী বলেন, “জিয়াউর রহমানের পর তার স্ত্রী খালেদা জিয়ার প্রত্যক্ষ আশ্রয়-প্রশ্রয়ে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছে। এই গ্রেনেড হামলার কুশীলবরাই কিবরিয়াকে হত্যা করেছে”।

বাংলাদেশে হত্যার রাজনীতি বন্ধ করতে বিএনপিকে স্থায়ীভাবে নির্বাসনে পাঠানোর কথা বলেন হাছান মাহমুদ।

দশট্রাক অস্ত্র মামলার রায়কে অপূর্ণাঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “খালেদা জিয়ার পৃষ্ঠপোষকতায় নিজামী এই অবৈধ অস্ত্র বাংলাদেশ থেকে খালাস করার নির্দেশ দিয়েছিল”। খালেদা জিয়াসহ পৃষ্ঠপোষণকারী সবাইকে আইনের আওতায় এনে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করার কথা বলেন তিনি।

কিবরিয়া হত্যা, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা, বঙ্গবন্ধু হত্যা এবং পেট্রোল বোমা ও গান পাউডার দিয়ে মানুষ হত্যার নির্দেশনা দান, পৃষ্ঠপোষকতা ও অর্থায়নের অভিযোগ এনে প্রকাশ্যে বিএনপিকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান হাছান মাহমুদ । অন্যথায় কোনো আলোচনা হবে না বলেও জানান তিনি।

মরহুম শাহ এ এম এস কিবরিয়ার ঘটনাবহুল জীবনের বিভিন্ন অধ্যায় তুলে ধরেন তিনি। ১৯৯৮ সালে শেখ হাসিনার শাসনামলে বিশ্ব মিডিয়ায় বাংলাদেশকে ‘ইমার্জিং টাইগার’ হিসেবে উল্লেখ করার ক্ষেত্রে কিবরিয়ার অবদানের কথা বলেন আওয়ামী লীগ নেতা।

বাংলাদেশ কৃষকলীগের অর্থ-সম্পাদক ও বঙ্গবন্ধু একাডেমির উপদেষ্টা নাজির আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আলোচনা করেন মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান দুর্জয়, সাম্যবাদী দলের মহানগর সম্পাদক হারুন চৌধুরী, ধানমণ্ডি মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী রাজিয়া মোস্তফা প্রমুখ।

এসএসআর/এআর