রাজশাহীতে বিএনপি-আ.লীগ সংঘর্ষ, আহত ১২

0
74
bnp

bnpরাজশাহীর দুর্গাপুরে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ বিএনপি নেতার ওপর স্থানীয় যুবলীগ-ছাত্রলীগের হামলার জের ধরে দফায় দফায় সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় অন্তত ১২ জন আহত হয়েছে। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দুর্গাপুর সদর এলাকার খাদ্য গুদামের সামনে এ সংঘর্ষের র্ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও নওপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আজাদ রেজাউল করিম, উপজেলা বিএনপি সভাপতি এসএম আকবর আলী বাবলু এবং ছাত্রদলের সাংগঠনিক-সম্পাদক কবির বকুলকে দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ইউনিয়নের ভিজিডি চাল উত্তোলনের জন্য ইউপি চেয়ারম্যান আজাদ রেজাউল করিম ও নওপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাংগঠনিক-সম্পাদক কবির বকুল উপজেলা সদরের সরকারি খাদ্য গুদামে যান। এ সময় চাল উত্তোলনের জন্য কাগজপত্রে স্বাক্ষর করছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান। এর মধ্যে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ও ছাত্রলীগ সভাপতি আলমগীর হোসেনের নেতৃত্বে স্থানীয় ১০/১৫ জন যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতাকর্মী দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তাদের উপর হামলা চালায়। এ সময় তাদেরকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে খাদ্য গুদামে আটকে রাখে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করেছে।

এদিকে স্থানীয় বিএনপি নেতারা তাদেরকে উদ্ধারে এগিয়ে এলে তাদের উপরেও হামলা চালায় যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতাকর্মী। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ বাধে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৯ জন আহত হয়েছে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়।

একই সময়ে স্থানীয় বিএনপির একটি কালো পতাকা মিছিল উপজেলা পরিষদের দিকে অগ্রসর হলে পার্শ্ববর্তী আওয়ামী লীগ অফিস থেকে ওই মিছিলের ওপর সংঘবদ্ধভাবে আওয়ামী-যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। এতে উপজেলা বিএনপি সভাপতি এসএম আকবর আলী বাবলুসহ ৩/৪ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজাদ রেজউল করিম আহত আহতাবস্তায়  জানান, তিনি আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এরই অংশ হিসেবে বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করছেন। এ ঘটনায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ভীত হয়ে তাকে নিবার্চন থেকে সরাতে পরিকল্পিতভাবে এ হামলা চালিয়েছে। খবর পেয়ে স্থানীয় বিএনপি কর্মীরা এগিয়ে এলে তাদের উপরেও হামলা চালানো হয়।

এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আলমগীর হোসেন বলেন, সকালে স্থানীয় ছাত্রলীগ-যুবলীগের কর্মীরা আনন্দ মিছিল বের করেন। এ সময় বিএনপি কর্মীরা মিছিলে হামলা চালায়। এতে ছাত্রলীগ-যুবলীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি করেনে তিনি।

দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে। যেকোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

সাকি/