রাজশাহীর উপজেলা নির্বাচনে সুবিধাজনক অবস্থানে আ.লীগ প্রার্থী

0
31

rajshahiআগামি ১৯ ফেব্রুয়ারি রাজশাহী মোহনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নিজেকে বিজয়ী করতে কোমর বেধে নির্বাচনী মাঠে নেমে পড়েছেন চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। এবার উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জামায়াতের একক প্রার্থী থাকায় ভোটের লড়াই জমে উঠেছে।

শুভেচ্ছা বিনিময়, নেতা কর্মীদের সঙ্গে সভা ও গণসংযোগ করছেন চেয়ারম্যান পদ প্রার্থীরা। পাশাপাশি ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরাও বসে নেই।

এবার নির্বাচনে বিএনপি ও জামায়াতের পৃথক প্রার্থী রয়েছে। এছাড়াও বিএনপি আরও দুই নেতা নির্বাচনে অংশ নিতে চাইলেও মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া তারা নির্বাচন করতে পারছেন না। এই দুই প্রার্থীর নেতাবাচক প্রভাব পড়তে পারে বিএনপির ভোট ব্যাংকে। এতে করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এর আগে গত ২৭ জানুয়ারি বৈধ প্রার্থীদের তালিক ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। চেয়ারম্যান পদে বৈধ প্রার্থীরা হলেন- উপজেলা বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, উপজেলা জামায়াতের আমির এফএম ইসমাইল আলম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম। এছাড়া ঋণ খেলাপির কারণে বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি শামিমুল ইসলাম মুন এবং আয়কর রিটার্ন দাখিল না হওয়ায় উপজেলা বিএনপির আরেক সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ গিয়াস উদ্দিনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া বিভিন্ন বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা উপস্থিত থেকে ভোট চাইছেন।

গণসংযোগে বসে নেই বিএনপি সমর্থিত উপজেলা বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক আব্দুস সামাদ। তিনি মঙ্গলবার তার জন্মস্থান জাহানাবাদ, কুঠিবাড়ি, তেঘর, খাড়তাসহ বেশকিছু এলাকায় গণসংযোগ করেন।

এদিকে জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী ইসমাইল আলমকে কোনো গণসংযোগ করতে দেখা যায়নি। তবে কিভাবে বিজয়ী হওয়া যায় এ ব্যাপারে নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করছেন।

পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি আবুল কালাম আজাদ, কেশরহাট পৌরসভা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোসলেম উদ্দিন ও যুবদল নেতা জাহাঙ্গীর আলম নির্বাচনে প্রচরণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।

অন্যদিকে, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ডলি আক্তার, জোসনা আরা খাতুন ও জাতীয় পার্টির উপজেলা সভানেত্রী বানেছা বেগম বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করে ভোট চাইছেন।

কেএফ