গণমাধ্যম গণতন্ত্রের দর্পণ: তথ্যমন্ত্রী

0
35
Inu1

Inu1তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, গণমাধ্যম হলো গণতন্ত্রের দর্পণ। গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ দেখেই সরকার তার ভুল-ত্রুটি সংশোধন করতে পারে। বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যম এমনভাবে  তথ্য পরিবেশন করবে যাতে সরকার তার ভুল-ত্রুটি সংশোধন করে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারে।

ইনু বলেন, গণতন্ত্রের অভিভাবকের দায়িত্ব পালন করে গণমাধ্যম। আর গণমাধ্যমের অভিভাবকের দায়িত্ব পালন করে তথ্য মন্ত্রণালয়। অভিভাবকের দায়িত্ব পালন করতে গিয়েই মাঝে মাঝে গণমাধ্যমের মুখোমুখি দাঁড়াতে হয় তথ্য মন্ত্রণালয়কে।

এক্ষেত্রে গণমাধ্যমের স্বাধীনতার নামে জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা উসকে দেওয়াকে দায়ী করেন তথ্যমন্ত্রী।

সম্প্রতি কিছু গণমাধ্যমের উদ্দেশ্যমূলক ভুল ও খণ্ডিত সংবাদ পরিবেশনকে তথ্যের অবাধ প্রবাহকে বাধাগ্রস্থ করছে বলে মনে করেন তিনি।

অবাধ তথ্য প্রবাহের স্বাধীনতা থাকলেও গণ মাধ্যমের দায়বদ্ধতা রয়েছে এমন মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, গণ মাধ্যম দেশ ও মানুষের স্বার্থে অবাধ ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করলেও তার কতিপয় দায়বদ্ধতা রয়েছে। সেই দায়বদ্ধতা হল নারী ও শিশুর অধিকার, দেশের স্বার্থ, আন্তঃরাষ্ট্রীয় সম্পর্ক, আইনের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ, মানবাধিকার, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ব্যবসা করার অধিকার ইত্যাদি।

উদ্দেশ্যমূলক সংবাদ পরিবেশন ও রাজনৈতিক সংঘাত সৃষ্টি করাকে একটি গোষ্ঠির পরিকল্পিত যোগসাজশ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, গণতন্ত্রের ক্লাবে থাকতে হলে জঙ্গিবাদ, মৌলবাদ, যুদ্ধাপরাধ ও জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করতে হবে।

খালেদা জিয়া পরিকল্পিতভাবে ৩ বছর যাবৎ সংলাপ এড়িয়ে গেছেন এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, দেশকে সংবিধানের বাইরে নিয়ে যেতে খালেদা জিয়া পরিকল্পিতভাবে ষড়যন্ত্র করেছেন। জঙ্গবাদী গোষ্ঠিকে দিয়ে দেশে সাম্প্রদায়িক সংঘাতকে উসকে দিয়েছেন।

এ সময় তিনি অতিদ্রুত সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার, সাংবাদিকদের অষ্টম ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়ন, ৭৪ এর আইন সংশোধন করে দ্রুত বাস্তবায়ন, টেলিভিশন সাংবাদিকদের ওয়েজ বোর্ডের অধীনে আনা, সম্প্রচার নীতিমালা বাস্তবায়ন, সম্প্রচার কমিশন ও প্রেস কাউন্সিল আইন সংশোধনের প্রতিশ্রুতি দেন।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ওমর ফারুকের সভাপতিত্বে এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল ও ওমর ফারুক প্রমুখ।