ভল্টের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণে নামছে বাংলাদেশ ব্যাংক

0
40
bank-vault
ব্যাংক ভল্ট

bank_vault_2ব্যাংকগুলো তাদের টাকা রাখার ভল্টের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে কিনা তা পর্যবেক্ষণে নামছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বিশেষ করে আগামিকাল থেকে সোনালী ব্যাংকের ৬৬টি ‘চেষ্ট ব্রাঞ্চ’ পরির্দশনের জন্য তিনটি টিম কাজ শুরু করবে। এরপর পর্যায়ক্রমে সব ব্যাংকের শাখার ভল্ট পরিদর্শন করা হবে বলে জানা গেছে।

রোববার বাংলাদেশ ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বৈঠকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নররা ছাড়াও প্রায় সকল নির্বাহী পরিচালক উপস্থিত ছিলেন।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহার নেতৃত্বে তিনটি পরির্দশন টিম এ চেষ্ট ব্রাঞ্চগুলো পরির্দশন করবে। পরিদর্শন টিমে আইটি বিশেষজ্ঞ এবং প্রকৌশলীও থাকবেন বলে জানা গেছে।

কিশোরগঞ্জে সোনালী ব্যাংকের ভল্ট থেকে সাড়ে ১৬ কোটি টাকা লুটের পর ব্যাংকগুলোর ভল্টের নিরাপত্তার ব্যাপারটি নতুন করে সামনে এসেছে। সোমবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ভল্টের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য কিছু নির্দেশনা দিয়ে একটি প্রজ্ঞাপনও জারি করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র ম. মাহফুজুর রহমান অর্থসূচককে বলেন, রাষ্ট্রীয় খাতের এ ব্যাংকটি যেহেতু কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হয়ে কাজ করে সেহেতু ব্যাংকটির ৬৬ টি চেষ্ট ব্রাঞ্চ পরির্দশন করে ভল্ট নিয়ে কাজ করা হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিদর্শন টিম এসকল ব্রাঞ্চে গিয়ে ভল্টগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ সম্পর্কে বাংলাদেশ ব্যাংককে জানাবে। এক্ষেত্রে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়ন্ত্রক এ সংস্থা ও সোনালী ব্যাংক যৌথ ভাবে ভল্ট উন্নয়নের কাজ করবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক কর্মকর্তারা বলছেন, রাষ্ট্রীয় খাতের এ ব্যাংকটি বাংলাদেশ ব্যাংকের হয়ে অনেক সময় বানিজ্যিক ব্যাংক বা গ্রাহক পর্যায়ে লেনদেন করে। ফলে  এ ব্যাংকের ভল্টে রক্ষিত অর্থের পরিমানও তুলনামূলক বেশিই থাকে। এ অবস্থায়  ব্যাংকটির  ভল্টে রক্ষিত অর্থের যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিতের বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সময়ে সময়ে নির্দেশনা দিলেও সোনালী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তা আমলে নেইনি। এর ফলে সম্প্রতি ভল্টের নিরাপত্তাবেষ্টনী ধ্বংস করে ব্যাংকের ভল্টে রক্ষিত অর্থ চুরির ঘটনা ঘটেছে। এমতাবস্থায়, ব্যাংক ভল্ট-এর নিরাপত্তার বিষয়টি অধিকতর শক্তিশালী ও যুগোপযোগী করা প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তারা বলছেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের টিম ৬৬ টি ব্রাঞ্চে ভল্টের বর্তমান কাঠামোগত, প্রযুক্তিগত ও বিমা নিরাপত্তার অবস্থা বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।