বর্ধিত ফি বাতিলের দাবিতে রাবিতে ছাত্রসমাবেশ

0
80
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়বাণিজ্যিক সান্ধ্যকোর্স বন্ধ করা ও বর্ধিত ফি বাতিলের দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার পূর্ব ঘোষিত সমাবেশে যোগ দিতে সকাল ১১টার দিকে প্রায় দুই হাজারেরও অধিক শিক্ষার্থী একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরোনো ফোকলোর চত্বরে সমাবেশে মিলিত হন। সমাবেশ হতে আগামিকাল বুধবার ক্লাস বর্জন ও সকাল ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত প্রশাসন ভবন অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে সান্ধ্য কোর্স বন্ধ ও বর্ধিত বেতন ফি বাতিলসহ তিন দফা দাবিতে শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। আধাঘণ্টা ব্যাপী বিক্ষোভ মিছিলটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরোনো ফোকলোর চত্বরে সমাবেশে মিলিত হয়।

সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সহমত জানিয়ে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সেলিম রেজা নিউটন, ফোকলোর বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সুস্মিতা চক্রবর্তী। আর আন্দোলনে সহমত প্রকাশ করে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অ্যধাপক কাজী মামুন হায়দার রানা, নাট্যকলা ও সংগীত বিভাগের কাজী সুস্মিন আফসানা, উল্লাস হাবীব জাকারিয়া। এছাড়া শিক্ষার্থী আয়াতুল্লাহ খোমেনি, আলমগীর হোসেন সুজন, আবু সুফিয়ান বখশী, আব্দুল্লাহ আল মুইজ, আহসান হাবিব রকি প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, বিশ্বব্যাংকের নির্দেশনায় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে যে কৌশলপত্র দিয়েছে তাতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের বোধশক্তিহীন ভাবা হয়েছে। তারা নির্দেশনা দিয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন করে হল নির্মাণ করা যাবে না, ছাত্ররাজনীতি বন্ধ করতে হবে ইত্যাদি। এটা সহিংসতা ঠেকানোর জন্য নয় বরং সাধারণ শিক্ষার্থীরা যাতে সংগঠিত হয়ে তাদের দাবি আদায়ে কোনো আন্দোলন না করতে পারে।

এর আগে সান্ধ্যকোর্স বন্ধ ও বর্ধিত ফি বাতিলের দাবিতে গত ২১ জানুয়ারি প্রশাসনকে সাত দিনের আল্টিমেটাম দেয় শিক্ষার্থীরা। কিন্তু আল্টিমেটামে প্রশাসনের কোনো প্রতিক্রিয়া না থাকায় রোববার ছাত্রসমাবেশের ঘোষণা দেয় তারা।

কেএফ/এআর