বিচারকের অবৈধ সম্পদ অর্জনের তথ্য পাওয়া গেছে: দুদক

0
32
দুদক

দুদকতারেককে খালাস দেওয়া বিচারক মোতাহার হোসেনের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগের তদন্তে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। বিচারক থাকাকালে তিনি বেশ কিছু ফ্ল্যাট ও জমির মালিক হয়েছেন। আর নিজ জেলা পাবনাতেও কিনেছেন অনেক জমি।করছেন অনেক বিলাস বহুল জীবন যাপন।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা ও উপ-পরিচালক হারুনুর রশিদ  সোমবার ওই বিচারকের দেহরক্ষী ও গাড়ি চালককে জিজ্ঞাসাবাদের পরে সাংবাদিকদের এ কথা জানান। তবে এ সকল সম্পদ কিভাবে এসেছে তা নিশ্চিত নয় দুদক।

সোমবার সকাল ৯টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত সেগুনবাগিচার দুদক কার্যালয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

হারুনুর রশিদ বলেন, মোতাহার হোসেনের বিরুদ্ধে বিভিন্নভাবে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আসার পর তার সম্পদের বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করেছে কমিশন। আর বিষয়টিতে আরও অধিকতর অনুসন্ধানের স্বার্থে তার দেহরক্ষী বাদল দেওয়ান ও ড্রাইভার সোহরাব হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, একজন মানুষের অধিকাংশ কাজের সাক্ষী থাকে তার ড্রাইভার ও গ্যানম্যান। তাই আমরা তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। জিজ্ঞাসাবাদে বিচারকের অবৈধ সম্পদের অর্জনের বিষয়ে গুরুপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে।

হারুনুর রশিদ জানান, মোতাহার হোসেনের দেহরক্ষী ও চালকের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন বিচারক থাকাকালে বেশ কিছু ফ্ল্যাট  ও জমির মালিক হয়েছেন। আর নিজ জেলা পাবনাতে অনেক জমি ক্রয় করেছেন।

এদিকে এর আগে ওই বিচারকের অবৈধ সম্পদ উপার্জনের অভিযোগে অধিকতর অনুসন্ধানের স্বার্থে সহযোগী দুই সাঁটলিপিকারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। তখন বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মানিলন্ডারিং মামলায় খালাস দেওয়া  সাবেক বিচারক ওই বিচারক ইতোমধ্যে দেশ ত্যাগ করেছেন বলেও তারা জানিয়ে ছিলেন।

এইউ নয়ন