ইজতেমায় বাটা জুতা বিক্রির ধুম

0
493

Bata বিশ্ব ইজতেমাকে কেন্দ্র করে বাটা জুতার বিক্রিতে ধুম পড়েছে। বাটা জুতার শোরুম সরগরম, সবাই ব্যস্ত তার পছন্দের জুতা-সেন্ডেল কেনার জন্য। এখানে স্পঞ্জ ও স্যানডাক জুতায় ১০ শতাংশ মূল্য ছাড়। এবং অন্যান্য ম্যানুফ্যাকচার প্রোবলেম জুতায় ৬০ শতাংশ মূল্য ছাড় দিচ্ছে বাটা কোম্পানি। অল্পদামে ভাল জুতা কিনতে চাইলে চলে আসতে পারেন টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে বিশ্ব ইজতেমার পাশেই অবস্থিত বাটা কোম্পানির নিজস্ব শোরুমে।

দর-দামঃ

সেন্ডেল জুতাঃ

১০ শতাংশ ছাড়ে বাটা সেন্ডেল ১২০ টাকার সেন্ডেল ১০৮ টাকা, ১০০ টাকার বাটা সেন্ডেল ৯০ টাকা, ১৭০ টাকার পাটাপটা সেন্ডেল  ১৫৩ টাকা, বৃদ্ধ লোকদের  ২২০ টাকার নাগরা জুতা ১৯৮ টাকা, ২২৫ টাকার সানডাক জুতা  ২০০ টাকা, ১৯০ টাকার আরেক সানডাক জুতা ১৭১ টাকা, ২২৫ টাকার বার্মিজ জুতা ১৭১ টাকা

দরে বিক্রি হচ্ছে।

চামড়ার জুতাঃ

৫৯০ টাকার চামড়ার স্লিপার ৪০০ টাকা, ৯৯০ টাকার জুতা ৬০০ টাকা, ইয়ংদের ৮৯০ টাকার চামড়ার জুতা ৬০০ টাকা, ৯৯০ টাকা জুতা ৬০০ টাকা এবং মনিং ওর্য়াকিং ৫৯০ টাকার জুতা ৪০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

বাচ্চাদের স্কুলের কেসঃ

৪৯০ টাকার বদলে ৩৫০ টাকা, ৬৯০ টাকার বদলে ৫০০ টাকা, ৩৯০ টাকার বদলে ২০০ টাকা, ইয়ংদের ৭৯০ টাকা কেস ৬০০ টাকা, বৃদ্ধদের ৫০০ টাকা কেস ৪০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

লেডিস মডেলঃ

৫৫০ টাকার জুতা ৪০০ টাকা, ৬৯০ টাকার জুতা ৩০০ টাকা, ৪৯০ টাকার জুতা ৩৫০ টাকা এবং দুই বেল্টওয়ালা ৪৯০ টাকার জুতা ২০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

বাটা সুঃ

বড়দের ১ হাজার ৯০ টাকার বাটা সু ১ হাজার টাকা, ১ হাজার ৯০ টাকার বাটা সু ৯০০ টাকা এবং বাচ্চাদের ১৫৯০ টাকার বাটা সু ৭০০ টাকা, ১ হাজার ৯০ টাকার বাটা সু ৬০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

 

ম্যানেজার ও সেলসম্যাদের বক্তব্যঃ

বাটা কোম্পানির এরিয়া ম্যানেজার আদনান বলেন, আমাদের বেচা-বিক্রি  মোটামুটি চলছে, আশা করছি আগামিকাল আখেরী মোনাজাতে দিন বেচা-বিক্রি ভাল হবে।

তিনি বলেন, এখানে রাবার জাতীয় জুতার উপর ১০ ভাগ মূল্যছাড় দেওয়া হয়েছে। তবে মহিলাদের জুতার তুলনায় পুরুষদের জুতার উপর ছাড় বেশি।

বাটা জুতা কোম্পানির টঙ্গী শাখার শোরুম ম্যানেজার মো.নরুন্নবী বলেন, গত বছরের তুলনায় বেচা-কেনা খুবই কম।

তিনি বলেন, মানুষের কাছে টাকা পয়সা নাই, দেশের অর্থনীতি খুবই খারাপ। টাকা পয়সা নাই বলে অনেকেই দর কষাকষি করছে কিন্তু কিনছে না।

তিনি বলেন, আমাদের এখানে ইজতেমা উপলক্ষে ১০ শতাংশ মূল্য ছাড় রয়েছে। জুতার কোয়ালিটিও অনেক ভাল।

ম্যানুফেকচার প্রোবলেম জুতার উপর সর্বোচ্চ ৬০ শতাংশ। সে জুতার কোয়ালিটিও অনেক ভাল। আর ঐ মূল্য ছাড় ইজতেমা ছাড়াও থাকে বলে বাটা কোম্পানির টঙ্গী শাখার ম্যানেজার জানান।

সেলসম্যান মঞ্জরুল ইসলাম বলেন, বেশি কথা বলতে পারবো না আমি ব্যস্ত আছি। বিক্রি ভাল তবে গত বছরের তুলনায় অনেক কম।

সেলসম্যান আরও জানান, আমরা এই শোরুমের লোক নই, জয়দেবপুর থেকে ইজতেমা উপলক্ষ্যে এসেছি। বাড়তি কোনো সুযোগ সুবিধা আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, বেতন আগের মত তবে খাবারও ভাড়া দেওয়া হবে।

ক্রেতাদের বক্তব্যঃ

ফেনী থেকে ইজতেমায় আসা শফিকুল ইসলাম বলেন, এখানে ইজতেমা উপলক্ষ্যে বাটা জুতায় ছাড় দেওয়ায় কিনতে এসেছি। বাটা জুতা অনেক ভাল, অন্য সময় কিনলে বেশি দাম দিয়ে কিনতে হয়।