ভাষা আন্দোলনের প্রথম সংগ্রামী তিশা

0
58
tisa

tisaগল্পের পটভূমি দেশ বিভাগকে কেন্দ্র করে। সবেমাত্র দুটি নতুন দেশের জম্ম হয়েছে। বর্ধমানের মেয়ে ময়নার বিয়ে হয় দিনাজপুরের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে। বনেদি পরিবারের সবাই ঐতিহ্য থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে বাংলা ভাষার চেয়ে উর্দু ভাষায় কথা বলতে বেশি সাবলীল। সেই কারণে স্বামী তার জন্য বাড়িতে উর্দু ভাষা শেখার জন্য শিক্ষক নিয়োগ করেন। স্বামী ক্রমেই তার ওপর ভাষাগত বিষয়ে বল প্রয়োগ করতে থাকেন। ময়নাকে সে তাই সুলতানা বলে ডাকেন।

মুখের ভাষা মন থেকে আসে। মায়ের মুখ থেকে শেখা এই ভাষা। মনের ওপর কখনোই তা চাপানো যায় না। এক সময় ময়না হয়ে ওঠে বিস্ফোরণোম্মুখ।

দিনাজপুরের সেই গৃহকোণ থেকে যে বিস্ফোরণের সূচনা হয় তা এক সময় ছড়িয়ে পড়ে দেশজুড়ে। আর এ সূচনাকারীর সন্ধান পাওয়া যায় সত্যেন সেনের ভাষা আন্দোলনের প্রথম সংগ্রামী গল্পে। এই গল্প অবলম্বনে তৈরি করা হয় সুমন আনোয়ারের পরিচালনায় ভাষা আন্দোলনের প্রথম সংগ্রামী নাটক। এতে ময়না চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিশা।

এই নাটকটি সম্পর্কে তিশা বলেন, এ রকম একটি ইতিহাসনির্ভর গল্প সম্পর্কে বলা অনেক কঠিন। আমি শুধু বলব, এতে অভিনয় করার সুযোগ পেয়ে খুবই আনন্দিত।

সম্প্রতি শুটিং শেষ হওয়া নাটকটিতে আরও অভিনয় করেছেন রওনক হাসান, বন্যা মির্জা প্রমুখ। ভাষা দিবসের নাটক হিসেবে নাটকটি প্রচার হবে বলে নির্মাতা জানান।