পেঁয়াজের দামে আবারও অস্থিরতা
মঙ্গলবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পণ্যবাজার

পেঁয়াজের দামে আবারও অস্থিরতা

Onion_2১৮ দলের টানা হরতাল-অবরোধে বাজারে পেঁয়াজের দামে আবারও অস্থিরতা শুরু হয়েছে । তৃতীয় বারের মতো বাজারের মাঠে সেঞ্চুরি পার করল পেঁয়াজ।  লাগামহীনভাবে এর দাম বাড়ায় উদ্বিগ্ন ক্রেতারা।

 

মঙ্গলবার রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও শ্যাম বাজারে  আমদানি করা ও দেশি দুই ধরনের পেঁয়াজই কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা  বেড়ে  দেশি পেঁয়াজ ১০০ টাকা থেকে  ১১০ টাকা এবং আমদানি করা পেঁয়াজ ৯০ থেকে ১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

 

অন্যদিকে পাইকারি বাজারে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ৮৫ থেকে ৯০ টাকা ও আমদানি করা পেঁয়াজ ৮০ থেকে ৮৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

 

পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে কিছু সবজি আসার কারণে গতকালের মতো অপরিবর্তিত রয়েছে সবজির দাম। তবে বাজারে মাছের দাম কিছুটা বাড়তির দিকে।

খুচরা পেঁয়াজ বিক্রেতা মো. সুমন চকিদার অর্থসূচককে জানান, অবরোধের কারণে পেঁয়াজের সরবরাহ কম হওয়ায় এর দাম বেশি।

পাইকারি বাজার থেকে আমাদের বেশি দামে পেঁয়াজ কিনতে হয়। আর তার ওপর নির্ভর করে বিক্রি করতে হয়।

পেঁয়াজের দাম বাড়ার বিষয়ে শ্যাম বাজার নবীন ট্রেডার্সের পরিচালক নারায়ণ শাহা অর্থসূচকে বলেন, পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম ১০ থেকে ১৫ টাকা পার কেজিতে বেড়েছে।

তিনি বলেন, অবরোধের কারণে চট্টগ্রাম পোর্ট থেকে কোনো মালামাল ঢাকায় ঢুকতে পারছে না যার জন্য পেঁয়াজের দাম বেড়েছে।

মি. নারায়ন আরও বলেন, আমার আড়তে কোনো পেঁয়াজ নেই। এরকম প্রায় সবার ঘর খালি। বসে বসে ঝিমোচ্ছি।

 

আজকের বাজার চিত্র:

কাঁচাবাজারঃ

কাঁচাবাজারে আজ দেখা গেছে, প্রতিকেজি শসা ৫০  টাকা, কাঁচা মরিচ ৮০ টাকা, লম্বা বেগুন ৫০ টাকা, গোল বেগুন ৫০ টাকা, তাল বেগুন ৭০ টাকা, লাল শিম ৫০ টাকা, সবুজ শিম ৬০ টাকা, ঝিঙ্গা ৭০ টাকা, মুলা ৩০ টাকা, আলু ২০ টাকা, গাজর ৬০ টাকা, করলা ৭০ টাকা, ঢেঁড়স ৭০ টাকা, পটল ৪৫ টাকা, পেঁপে ২০ টাকা, কচুর লতি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, কচুর মুখি ৪০ টাকা, বরবটি ৮০ টাকা, টমেটো ১২০ টাকা, কাঁচা টমেটো ৭০ টাকা, ওলকপি ৫০ টাকা, শালগম ৫০ ও চিচিঙ্গা ৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া প্রতিপিস ফুলকপি ৪০ টাকা, বাঁধাকপি ৩৫ টাকা, মিষ্টিকুমড়া ৬০ থেকে ৯০ টাকা ও লাউ ৬০ টাকা, জালি কুমড়া ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, পানি কচু ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকা পিস হিসেবে বিক্রি হচ্ছে এবং প্রতিহালি কাঁচকলা ২৫ টাকা ও লেবু ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া, বাজারে লালশাক, কলমি শাক, লাউ শাক, পালং শাক, মুলা শাক, পুঁই শাক, ডাটা শাকসহ নানা ধরনের শাকের আটি ১০ থেকে ৩৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। পুদিনা পাতা ১০০ গ্রাম ৩০ টাকা, ধনেপাতা প্রতি ১০০ গ্রাম ১০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

মুদিঃ

মুদি দোকান ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ৯০ টাকা, ভারতীয় পেঁয়াজ ৬৫ টাকা,  চায়না বড় রসুন ৮৫ টাকা, দেশি রসুন ৮০ টাকা, একদানা রসুন ১২০ টাকা, চায়না আদা ১৮০  টাকা, ইন্দোনেশিয়ান আদা ১৫০ টাকা, শুকনা মরিচ ১৮০ টাকা, হলুদ ১২০ টাকা, হলুদের গুড়া ১৮০ টাকা, মরিচের গুড়া ২০০ টাকা, ধনিয়া ৮০ টাকা, আটা (প্যাকেট) ৪০ টাকা, ময়দা (প্যাকেট) ৫০ টাকা, দারুচিনি ৩০০ টাকা, এলাচি ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৭০০ টাকা, জিরা ৩৫০ টাকা থেকে ৪৫০ টাকা, বেশন ৯০ টাকা, দেশি মশুর ডাল ১২০ টাকা, ভারতীয় মশুর ডাল ৮০ টাকা, খেসারি ডাল ৪৫ টাকা, মুগ ডাল ১২০ টাকা, ছোলা ৫০ টাকা, অ্যাংকর ডাল ৪২ টাকা, মাসকলাই ১২০ টাকা, বুট ৫০ টাকা, খোলা চিনি  টাকা, প্যাকেট চিনি ৫৪ টাকা ও প্রতি লিটার সয়াবিন খোলা ৯০ টাকা ও বোতলজাত সয়াবিন ১১৭ টাকা  হিসেবে বিক্রি হচ্ছে।

চালঃ

আজ চালের বাজারে প্রতিকেজি নাজিরশাইল ৫৮ টাকা, মিনিকেট ৪৮ থেকে ৫০ টাকা, লতা আটাশ ৩৮ থেকে ৪০ টাকা, মোটা চাল ৪২ টাকায়, জিরা নাজির ৫৫ টাকা, আটাশ ৪২ টাকা, পাইজাম ৪০ টাকা, চিনি গুড়া ১১০ টাকা, পারিজা ৩৮ টাকা, বিআর-২৮ ৪০ থেকে ৪২  টাকা, বিআর-২৯ ৪০ টাকা, হাসকি ৪০ টাকা, স্বর্ণা ৩৬ টাকা থেকে ৩৮ টাকা  দরে বিক্রি হচ্ছে।

ডিমঃ

আজকে বাজারে প্রতি হালি লেয়ার মুরগির লাল ও সাদা ডিম ২৮ টাকা, হাঁসের ডিম ৪০ টাকা, পাকিস্তানি মুরগির ডিম ৪০ টাকা, দেশি মুরগির ডিম ৪০ টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

মাছঃ

মাছের বাজারে আজ ৮০০ থেকে ৯০০ গ্রাম ওজনের বেশি প্রতিহালি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ২ হাজার  ৫০০ টাকা। এক কেজি ওজনের বেশি ইলিশের পিস ৬০০ টাকা ও প্রতিকেজি জাটকা ৩০০ টাকা, চন্দনা ইলিশ ১৬০ টাকা, কাতল মাছ ৩০০ টাকা, রুই মাছ ৩০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০ টাকা, পাঙ্গাস ১২০ টাকা, চিংড়ি (বড়) ১ হাজার ২০০ টাকা, চাষের কৈ ২০০ টাকা, দেশি কৈ ৩০০ টাকা, টাকি ১৪০ টাকা, সিলভার কার্প ১২০ টাকা, মলাঢেলা ২০০ টাকা, বাইলা মাছ ৫৫০ টাকা, কাচকি মাছ ২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

শুটকি মাছঃ

শুটকি মাছ প্রতি ১০০ গ্রাম চিংড়ি শুটকি মানভেদে ৩০ টাকা থেকে ৭০ টাকা, টাকি ৬০ টাকা, কাসকি ৬০ টাকা, লইট্যা শুটকি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, বাইম মাছের শুটকি ৮০ টাকা, চাপিলা শুটকি ৬০ টাকা, পুটি মাছের শুটকি ৬০ টাকা, নলা মাছের শুটকি ৬০ টাকা, চান্দা মাছের শুটকি ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি কেজি ইলিশ মাছের শুটকি ৭০০ টাকা ও কাইলা শুটকি ৬০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

 

 

মাংসঃ

মাংসের বাজারে গরুর মাংস ৩০০ টাকা ও খাসি ৪৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক কেজি ওজনের প্রতিটি দেশি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩৪০ থেকে ৩৫০ টাকা, ১৪ ছটাক ওজনের মুরগি ২৮০ টাকা, ব্রয়লার মুরগি কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকা, লেয়ার মুরগি ১৪০ টাকা, হাঁস ৩০০ টাকা, ভেড়া ও ছাগীর মাংস ৪৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

ফলঃ

আজ ফলের বাজারে প্রতিকেজি আপেল ১৫০ থেকে ১৮০ টাকা, মালটা ১২০ টাকা, আঙুর ৪৫০ টাকাও প্রতি ডজন কমলা ২০০ থেকে ২২০ টাকা, বেদানা ২৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

প্রতিহালি সাগর কলা ২৫ টাকা, নেপালি কলা ১৫ টাকা, শবরী কলা ২৫ টাকা, চাপা কলা ১৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া পেয়ারা ১২০ টাকা, আমড়া ১২০ টাকা, আমলকি ১৫০ টাকা ও জলপাই ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

প্রতিপিস জাম্বুরা ৮০ টাকা থেকে ১২০ টাকা, বেল ৮০ থেকে ১৫০ টাকা, আনারস প্রতিপিস ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এসএস/এআর

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ