রাজশাহীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

0
30
rajshahi_map

rajshahiরাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় অষ্টম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে রবিউল ইসলাম নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত রবিউল ইসলাম স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে ১৪ দিন ধরে আটক রেখে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেছে বলে জানা যায়। এতে ওই ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কৌশলে তার নিজ বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় রবিউল। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ওই ছাত্রীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে ভুক্তভোগীর পিতা বাদি হয়ে অভিযুক্ত রবিউল ইসলামকে প্রধান আসামি করে ৩ জনের নামে চারঘাট মডেল থানায় একটি মামলা করেন। মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, চারঘাটের জনৈক ব্যক্তি তার বড় মেয়েকে গত কয়েক বছর আগে নাটোরে বিয়ে দেন। সেই সুবাদে ছোট মেয়ে মাঝে মধ্যে বড় মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে যেত। বোনের বাড়িতে যাতায়াতের সুবাধে নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার সিদাখালী গ্রামের জেকের আলীর ছেলে রবিউল ইসলামের সাথে পরিচয় হয়। এতে করে রবিউল ইসলাম বিভিন্ন সময় ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীটিকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে আসছিল। তারই জের ধরে গত ৬ জানুয়ারি সকাল ১০টার দিকে ছাত্রীটি নিজ বাড়ি থেকে স্কুলে যাওয়ার পর আর বাড়িতে ফিরে আসে নি। পরে মেয়েটির পরিবার অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তাকে পাওয়া যায় নি।

কয়েকদিন পর অভিযুক্ত রবিউল ইসলামের বড় ভাই সেলিম ও পিতা জেকের আলী মোবাইল ফোনে জানান, মেয়েটি রবিউল ইসলামের নিকট রয়েছে। এমনকি তারা তাকে রবিউলের সঙ্গে তার মেয়ের বিয়ে দিবেন বলে আশ্বস্ত করে। কিন্তু গত ২০ জানুয়ারি অভিযুক্ত রবিউল ওই স্কুলছাত্রীকে কৌশলে বাঘা উপজেলার আড়ানি বাসস্ট্যান্ড এলাকা রেখে পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটি অসুস্থ অবস্থায় বাড়িতে ফিরে এসে সব ঘটনা খুলে বলে।

এ ব্যাপারে চারঘাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার গোলাম মোর্ত্তুজা বলেন, এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। ইতোমধ্যে আসামিদের অবস্থান জানতে লোক পাঠানো হয়েছে। শিগগিরই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।