যৌন কাজের প্রস্তাব সামাজিক মাধ্যমে!

অর্থসূচক ডেস্ক

0
147
ছবিটি প্রতীকী

যুক্তরাজ্যে শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি বেড়েছে। এই ফি মেটাতে যৌন কর্মে জড়িয়ে পড়ছেন তারা। আর এ কাজে সহায়তা করছে বিভিন্ন সংস্থা ও ল্যাপ ড্যান্স ক্লাব। শিক্ষার্থীদের যৌন ব্যবসা করে নগদ অর্থ উপার্জনের পথ তৈরি করে দিচ্ছে তারা।

ছবিটি প্রতীকী
সহচর সংস্থাগুলো শিক্ষার্থীদের নিয়োগ দিচ্ছে যৌন ব্যবসায়- ছবি প্রতীকী

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম মিরর জানিয়েছে, অনলাইন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসব শিক্ষার্থীকে সহচর ও ল্যাপ ড্যান্সার হিসেবে কাজ করার প্রস্তাব দিয়ে যাচ্ছে ওই সংস্থা ও ড্যান্স ক্লাবগুলো।

অর্থের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন পোস্ট দিয়ে যাচ্ছে তারা। এতে সাড়া দিয়ে শিক্ষায় অর্থায়নের পথ হিসেবে যৌন কাজকে বেছে নিচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। এদের কেউ কেউ সপ্তাহে ১ হাজার ব্রিটিশ পাউন্ড পর্যন্ত আয় করতে সক্ষম হচ্ছেন।

এ ব্যাপারে গত বছর লিভারপুল ইকোর এক তদন্ত প্রকাশের পরই এমন তথ্য উঠে এসেছে বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, কলেজ ফি মেটাতে ১৮ থেকে ১৯ বছরের তরুণীরা তাদের যৌনতা বিক্রি করছে। যৌন কর্মের সাথে সম্পৃক্ত শিক্ষার্থীদের সংখ্যা তুলে ধরতে এই গবেষণা করা হয়।

মিরর অনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়, গোল্ডস গার্লিস নামে একটি সংস্থা এক বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেইসবুক পেজে বার্তা পোস্ট করেছে; যেখানে দেখা যায়, তারা যৌনকর্মী হওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছে।

ম্যানচেস্টার ও সেলফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পেজের এক বার্তায় দেখা গেছে, সংস্থা সহচর হওয়ার জন্য চাকরি খুঁজছেন? গোল্ডস গার্লসে প্রকৃত সহচর কাজ খালি আছে। যুক্তরাজ্যে এ নমনীয় ও খণ্ডকালীন সহচর কাজ সত্যিই আপনার আয় বাড়াতে সহায়তা করবে।

বার্তায় ১৮ থেকে ৪০ বছরে মধ্যে বয়সী নারীদের প্রস্তাব দেওয়া হয়। তবে সংবাদ মাধ্যম টাইমসে জানানো হয়েছে, তারা সব সময় ফ্রেসার বা নতুন মুখদেরই টার্গেট করে।

যৌনকর্মীদের অধিকার রক্ষার কাজ করে দ্য ইংরেজি কালেকটিভ অফ প্রস্টিটিউটস। তারা বলছে, শিক্ষাঋণের বোঝা, কাজের অভাব, উচ্চ টিউশন ফি মেটাতে শিক্ষার্থীদের বেশ্যাবৃত্তির পথ বেছে নিতে হচ্ছে অধিক হারে।