টিউশন ফি মেটাতে ‘সুগার ড্যাডিদের’ সঙ্গে ডেটিং

অর্থসূচক ডেস্ক

0
436

শিক্ষাঋণের কিস্তি এবং টিউশন ফি পরিশোধের জন্য অভিনব এক পন্থা বেছে নিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ লাখেরও বেশি তরুণী। উচ্চবিত্ত বয়ষ্ক পুরুষদের সাথে ডেটিং করে তারা যোগাড় করছে শিক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ। এদের মধ্যে ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটি, কেন্ট ইউনিভার্সিটির মতো নামিদামি বিশ্ববিদ্যায়ের ছাত্রীও রয়েছেন। আছেন স্নাতকোত্তর পর্যায়ের অসংখ্য ছাত্রী। তবে এর নিচের শ্রেণীর ছাত্রীদের চাহিদা আর আয়ই বেশী।

ব্র্যন্ডন ওয়েড ও তার স্ত্রী তানিয়া
ব্র্যন্ডন ওয়েড ও তার স্ত্রী তানিয়া

এজন্য তাদেরকে ‘সুগার ড্যাডি’ নামে একটি বিশেষ ডেটিং ওয়েবসাইটে নিবন্ধন করতে হয়েছে। ওই সাইটের বিশেষত্ব হলো বয়স্ক ধনী পুরুষ ও কম বয়সী তরুণীদের মধ্যে ডেটিংয়ের সুযোগ করে দেওয়া।

এ কাজ করা তরুণীরা ‘সুগার বেবি’ নামে পরিচিত। এসব সুগার বেবির অধিকাংশের বয়স ১৭ থেকে ২১ বছরের মধ্যে। এ কাজ করে তারা প্রতি মাসে ৩০০০ পাউন্ড পর্যন্ত আয় করছেন।

ওয়েবসাইটে সারাবিশ্বের ১৪ লাখ ছাত্রীর প্রোফাইল রয়েছে। এদের অধিকাংশের বয়স ১৭ থেকে ২১ বছর। এরা মাসে ৩০০০ পাউন্ড পর্যন্ত আয় করছেন।

মেইল অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব ব্যক্তির কেউ কেউ ওই তরুণীদের বাবার চেয়েও বয়সে বড়। সপ্তাহের বিভিন্ন সময় তারা বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট এবং অনুষ্ঠানে কিংবা হোটেলে তাদের সঙ্গে রাত কাটিয়ে থাকেন।

এই ওয়েবসাইটটির প্রতিষ্ঠাতা ব্র্যন্ডন ওয়েড দাবি করছেন, তার এ ওয়েবসাইটে সারাবিশ্বের ১৪ লাখ ছাত্রীর প্রোফাইল রয়েছে।

তিনি জানান, এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনেক বয়স্ক ধনী ডেটিং করতে গিয়ে মেয়ের বয়সী তরুণীকে বিয়েও করছেন। এমনকি তিনি নিজেও এভাবেই বিয়ে করেছেন। তার স্ত্রী তানিয়ার বয়সও তার থেকে অনেক কম। ৩ বছর আগে পরিচয় ঘটার পর ২ বছর ডেটিং করে তারা বিয়ে করেন। বর্তমানে তারা লাস ভেগাসে একসাথে বাস করেন।

University-Sugar-Baby
২০১৪ সালে সুগার ড্যাডি ওয়েবসাইটে নিবন্ধন করা যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর সংখ্যা

ওয়েস্টমিনিস্টার, কেন্ট, কেমব্রিজ, নটিংহাম, লিডস, ম্যানচেস্টার, ব্রিস্টলসহ ব্রিটেনের শীর্ষ ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণী শিক্ষর্থীরাও এই ওয়েবসাইটে যুক্ত। মেইলের প্রতিবেদনে ২০১৪ সালে যুক্তরাজ্যের বড় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কতজন ছাত্রী সুগার ড্যাডিদের সাথে ডেটিং এর জন্য ওয়েবসাইটে নাম নিবন্ধন করেছেন তার একটি তালিকা দেওয়া হয়েছে। পরিসংখ্যান অনুসারে, ২০১৪ সালে ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টমিনিস্টার থেকে ১৮০ জন, ইউনিভার্সিটি অব কেন্ট এর ১৩৪ জন, ইউনিভার্সিটি অব কেন্ট এর ১২৭ জন, ইউনিভার্সিটি অব নটিংহাম এর ১১৬ জন ছাত্রী সুগার ড্যাডি নামের ওয়েবসাইটটিতে নাম নিবন্ধন করে।

University-Sugar-Baby-3
সুগার ড্যাডি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ডেটিংয়ে আসা এক প্রৌঢ় ও তরুণী জুটি

সুগার ড্যাডিতে নাম নিবন্ধন করা ছ্রাত্রীদের ৭৩ শতাংশ স্নাতক বা তার নিচের শ্রেণীতে পড়াশোনা করছে। আর ২৭ শতাংশ ছাত্রী স্নাতকোত্তর শ্রেণীর।

বুড়ো ভামদের সঙ্গ দেওয়া তরুণীদের ৭১ ভাগই শ্বেতাঙ্গ। এ তালিকায় এশিয়ান তরুণী আছে ১৪ শতাংশ, কৃষ্ণাঙ্গ আছে ৮ শতাংশ। হিসপানিক বা ল্যাটিন অ্যামেরিকান তরুণীর সংখ্যা ৪শতাংশ। তালিকায় মধ্যপ্রাচ্যের তরুণীও আছে। তবে এদের সংখ্যা খুবই কম, নিবন্ধনকৃত তরুনীদের ১ শতাংশ মাত্র।

ওয়েবসাইটটির নিজস্ব গবেষণায় উঠে এসেছে, ব্রিটেনের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ২০ শতাংশ তরুণী উচ্চবিত্ত পরিবার থেকে আসেন। অন্যদিকে ১৫ শতাংশ তরুণী আসেন উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে। এদের ৪১ শতাংশ মধ্যবিত্ত শ্রেণী থেকে আসা আর ২৪ শতাংশ এসেছে নিম্নবিত্ত পরিবার থেকে।