নভেম্বরে বিদেশি বিনিয়োগ ২১ শতাংশ বেড়েছে

Dollar_2
ডলার

Dollar_2দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যেও পুঁজিবাজারে বেড়েছে বিদেশি বিনিয়োগ। নভেম্বর মাসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মাধ্যমে নিট বিদেশী বিনিয়োগ বেড়েছে ৪৮ কোটি ৩৭ লাখ টাকা ২১ দশমিক ১৮ শতাংশ। এ সময়ে লেনদেন বা শেয়ার কেনা-বেচা বেড়েছে ১০২ কোটি টাকা। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, গত মাসে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে আশার আলো দেখছিল বিদেশি বিনিয়োগকারীরা। তারা মনে করছিল যে রাজনৈতিক অস্থিরতাকে পার করে সমঝোতার দিকেই হাঁটবে প্রধান দুই দল। যার ফলে বিনিয়োগের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠেছিল তারা। এছাড়াও গত মাসের শুরুর দিকে অনেক শেয়ারের দাম ছিল কম। এদিক থেকেও তারা আগ্রহী হয়েছে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ব্রাক ইপিএল স্টক ব্রোকারেজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মুহাম্মদ রহমত পাশা অর্থসূচককে বলেন, আসলে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা অনেক শিক্ষিত। যার ফলে তারা কোনো দেশে বিনিয়োগ করার সময় সে দেশের সব দিক দেখে বিনিয়োগ করে।

তিনি বলেন, গত মাসে দেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট ছিল অন্য রকম। বিভিন্নভাবে মিডিয়াতে এসেছে যে দুই দলের মহাসচিব পর্যায়ে চিঠি চালাচালি হচ্ছে। এর কারণে তারা ভেবেছিল দুই দলের মধ্যে একটি সমঝোতা হবে। আর যদি সমঝোতা হয়ে যায় তাহলে বাজার তার আপন গতি ফিরে পাবে। এ কারণেই তারা বিনিয়োগের প্রতি আগ্রহী হয়েছে।

অন্যদিকে অনেক শেয়ারের দাম ছিল আকর্ষণীয় অবস্থায়। বিনিয়োগ বাড়ানোর ক্ষেত্রে এটিও বড় কারণ ছিল বলে মনে করেন তিনি।

সূত্র জানায়, নভেম্বর মাসে নীট বিদেশি বিনিয়োগ করেছে ২৭৬ কোটি ৭২ লাখ ৬৪ হাজার টাকা। আর অক্টবরে এর পরিমাণ ছিল ২২৮ কোটি ৩৫ লাখ ছয় হাজার টাকা। এ হিসাবে নভেম্বর মাসে নীট বিনিয়োগ বেড়েছে ৪৮ কোটি ৩৭ লাখ ৩৩ হাজার টাকা বা ২১ দশমিক ১৮ শতাংশ।

সূত্র আরও জানায়, অক্টোবরে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা শেয়ার ক্রয় করে ২৬৬ কোটি ৮৫ লাখ  ৩০ হাজার টাকা। এর বিপরিতে তারা বিক্রি করে ৩৮ কোটি ৪৯ লাখ ৯৯ হাজার টাকা। আর নভেম্বরে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা শেয়ার ক্রয় করে ৩৪২ কোটি ৪৪ লাখ ২৮ হাজার টাকার। এর বিপরিতে তারা বিক্রয় করে ৬৫ কোটি ৭১ লাখ ৬৪ হাজা টাকা।

এর আগে সেপ্টেম্বর মাসে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা লেনদেন করেছে ২৫০ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে ক্রয় করেছে ১৬৭ কোটি ৫৫ লাখ ও বিক্রয় করেছে ৮২ কোটি ৯০ লাখ টাকার শেয়ার।

এছাড়া আগস্টে ৩১৩ কোটি, জুলাইয়ে ২৯৭ কোটি, জুনে ৩৩৬ কোটি, মে মাসে ৩৫০ কোটি ৬৮ লাখ, এপ্রিলে ১৭৮ কোটি ৮৫ লাখ, মার্চে ১৫৮ কোটি ৯ লাখ, ফেব্রুয়ারিতে ২৫৬ কোটি ৩০ লাখ এবং জানুয়ারি মাসে ১৭৩ কোটি ২৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করেছেন বিদেশী বিনিয়োগকারীরা।

জিইউএস