‘নারায়ণগঞ্জে পোশাক পল্লী গড়তে চায় সরকার’

0
70
শনিবার বিকেলে বিজিএমইএ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন
শনিবার বিকেলে বিজিএমইএ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন
শনিবার বিকেলে বিজিএমইএ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন

সরকার নারায়ণগঞ্জের শান্তির চরে পোশাক পল্লী গড়ে তুলতে চায় বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

শনিবার বিকেলে বিজিএমইএ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই কথা জানান।

সংবাদ সম্মেলনে পশ্চিমা পোশাক ক্রেতা জোট অ্যালায়েন্সের প্রতিনিধি মেজবাহ রবিন, বিজিএমইএ সাবেক সভাপতি ফজলুল আজীম, বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতিদ্বয় উপস্থিত ছিলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের পোশাক শিল্প অনেক এগিয়েছে। একে আরও এগিয়ে নিতে বাউশিয়ার মতো নারায়ণগঞ্জের শান্তির চরে একটি পোশাক পল্লী স্থাপন করা হবে। প্রায় ১ হাজার একর জমির ওপর এই পল্লী স্থাপন করা হবে। এর মাধ্যমে এই এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কারখানাগুলোকে একত্রিত করা হবে।

এ সময় শ্রমিকদের জন্য একটি হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, রানা প্লাজা ধসের পর বিদেশি ক্রেতারা পোশাকের দাম কমাতে কারখানা মালিকদের ওপর চাপ দিয়েছিল। দামও বাড়ানো হয়েছিল। তবে কারখানার উন্নয়ন ও শ্রমিকের বেতন বাড়ানোর পর ক্রেতারা আর পোশাকের দর বাড়ায়নি। অ্যাপারেল সামিটের মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছে পোশাকের দর বাড়ানোর আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, অ্যাপারেল সামিটের মূল লক্ষ্য ২০২১ সালের মধ্যে পোশাক রপ্তানি ৫০ বিলিয়নে নিতে রোডম্যাপ তৈরি করা। রোডম্যাপ অনুযায়ী নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করতে পারলে ৫০ বিলিয়নের চেয়ে আরও বেশি রপ্তানি করা সম্ভব।

তিনি বলেন, এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে দক্ষ মানব সম্পদকে কাজে লাগাতে হবে।