তেল অপসারণের কাজ শুরু করেছে বনবিভাগ

0
88

সুন্দরবনের শেলা নদীতে ছড়িয়ে পড়া তেল অপসারণের কাজ শুরু করেছে বনবিভাগ। শনিবার ভোর থেকে বনবিভাগের উদ্যোগে ২০০ গ্রামবাসীকে নিয়ে শতাধিক নৌকার সাহায্যে তেল অপসারণের কাজ শুরু হয়। এ কাজে ২শ’ গ্রামবাসীকে মজুরি দেবে বনবিভাগ।

Sundorban
সুন্দরবনের শ্যালা নদীর আশপাশের ছোটো নদী ও খালেও ভাসছে তেল

এর আগে শুক্রবার থেকেই শেলা নদীতে ছড়িয়ে পড়া তেল সনাতন পদ্ধতিতে সংগ্রহ করে স্থানীয় গ্রামবাসীরা। তাদের সংগৃত তেল রাষ্ট্রীয় একটি তেল সংস্থা প্রতি লিটার ৩০ টাকা করে কিনবে বলে জানিয়েছেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার আব্দুস সামাদ।

সুন্দরবনের পূর্ব বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আমীর হোসেন চৌধুরী বলেন, তেল অপসারণের জন্য গ্রামবাসীকে মজুরি দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া তেল অপসারণ করে পদ্মা ওয়েল কোম্পানির কাছে বিক্রি করতে পারবে গ্রামবাসী। তেল পুরোপুরি অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত এ কাজ চলবে।

এদিকে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন, নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়, বন বিভাগ এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের ৯ সদসের তদন্ত কমিটি শেলা নদী পরিদর্শন করেন।

কমিটির প্রধান বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ) মো. নুরুল করিম জানান, গবেষণা করে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করা হবে। ১৮ ডিসেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে সুন্দরবনের শেলা নদীতে ছড়িয়ে পড়া তেল অপসারনে রাসায়নিক স্প্রে ছিটানোর কাজ বনবিভাগের আপত্তিতে শুক্রবার স্থগিত করা হয়। সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্যে বিরূপ প্রভাব পড়ার আশঙ্কায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার ভোররাত ৪টার দিকে বাগেরহাটের সুন্দরবনের শরণখোলা ও চাঁদপাই রেঞ্জের শেলা নদীর মৃগামারী এলাকায় নোঙরে থাকা তেলবাহী জাহাজ এম. টি সাউদার্ন ওটি-৭ আরেকটি তেলবাহী জাহাজের ধাক্কায় ডুবে যায়।

প্রায় ৫৪ ঘণ্টা পর গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে ডুবে যাওয়া ট্যাংকারটি উদ্ধার করা হয়েছে।

ট্যাংকারটি গোপালগঞ্জের একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য খুলনার পদ্মা অয়েল ডিপো থেকে ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৬৬৪ লিটার তেল নিয়ে শেলা নদীতে যাত্রাবিরতি করেছিল।

এই জাহাজ ডুবির ঘটনায় বনবিভাগের পক্ষ থেকে ১০০ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণের মামলা করা হয়েছে। চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক বেলায়েত হোসেনকে প্রধান করে প্রাথমিকভাবে একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

সুন্দরবনের মতো স্পর্শকাতর এলাকয় তেলবাহী জাহাজ ডুবে যাওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। এ ঘটনায় সুন্দরবনের কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তা অনুসন্ধানে জাতিসংঘের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদল শিগগিরই বাংলাদেশে আসতে পারে বলে জানা গেছে।

এসএম