গির্জায় পর্ন: নিষ্পাপ দাবি অভিনেত্রীর

0
105
অস্ট্রিয়ার এই গির্জাতেই ধারণ করা হয় সেই পর্ন মুভি
অস্ট্রিয়ার এই গির্জাতেই ধারণ করা  হয় সেই পর্ন মুভি
অস্ট্রিয়ার এই গির্জাতেই ধারণ করা হয় সেই পর্ন মুভি

মাস চারেক আগে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ক্যাথলিক রাষ্ট্র অস্ট্রিয়ার এক গির্জার ভেতরে পর্ন দৃশ্য ধারণ করার ঘটনা ঘটে। ইউটিউবে আপলোড করা ভিডিওতে দেখা যায় এক নারী গির্জায় নিজের শরীর নিয়ে এমন ধরনের অঙ্গভঙ্গি করছেন যা শুধুমাত্র পর্ন মুভিতেই দেখা যায়। এ সময় ওই নারীর হাতে একটি বাইবেল ও জপমালা (তসবি) ছিল।

‘ব্যাবসী’ নামের ভিডিওটি অস্ট্রিয়ার স্থানীয় একটি টেলিভিশনে প্রচারিত হওয়ার পর গির্জা কর্তৃপক্ষ নিজেদের গির্জা চিনে ফেলে। পরে গির্জা কর্তৃপক্ষ পুলিশের সহায়তায় অনুসন্ধানের মাধ্যমে ওই নারীকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করে। অনুসন্ধানে জানা যায়, ওই নারী এর আগেও ওই গির্জাটিতে একটি পর্ন ভিডিও তৈরি করেছে।

শেষ পর্যন্ত ২৯ বছর বয়সী পোলিশ বংশোদ্ভূত ওই নারীকে আটক করে পুলিশ। সেসময় তার বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা ও গির্জার পরিবেশ নষ্ট করার অভিযোগ আনা হয়।

সম্প্রতি ওই অভিযোগের শুনানিতে অস্ট্রিয়ার একটি আদালত তাকে প্রশ্ন করে, পর্ন তৈরীর জন্য আপনি গির্জাকে বেছে নিয়েছিলেন কেন?

এর উত্তরে ওই নারী বলেন, “বিশ্বাস করুন, অন্যদের পাপের তুলনায় এটা এমন কিছু নয়। সেক্ষেত্রে আমি নিষ্পাপ অ্যাঞ্জেলের মতো।”

পরে তাকে ৩ মাসের স্থগিত দণ্ডাদেশ (একই অপরাধ আবার করলে এই সাজা দেওয়া হবে) দেওয়া হয়েছে। একইসাথে ওই ভিডিও থেকে আয় হওয়া অর্ধেক টাকা (৪ হাজার ২৩০ ইউরো) জরিমানা করে গির্জার যাজকের কাছে ক্ষমা চাইতে আদেশ দেওয়া হয়েছে।

তবে আদালতের বাইরে স্থানীয় মিডিয়াকে তিনি বলেছেন, আমি জানতাম না ব্যাপারটি অবৈধ। তবে আমি গর্বিত যে পুরো দেশ ভিডিওটি দেখেছে।

ইউএম/