আফগানিস্তানে ব্রুস লি!

0
74
fghan_bruce_lee_abbas_alizada

ফেসবুকে ব্রুস লির সাথে মিলিয়ে ছবি পোস্ট করার পর রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে উঠেছেন আফগানিস্তানের এক যুবক। চেহারার মিলের কারণে তাকে ডাকা হচ্ছে ‘আফগান ব্রুস লি’।

bruce lee and abbas
আব্বাসের সেই ছবি, যা তাকে তারকাখ্যাতি এনে দিয়েছে।

শুক্রবার এক খবরে বিবিসি জানিয়েছে, ওই যুবকের নাম আব্বাস আলীজাদা।

দিন কয়েক আগেও আব্বাস ছিলেন আফগানিস্তানের অন্য সব যুবকদের মতো; গরীব কিন্তু চোখ ভরা স্বপ্ন।

সম্প্রতি নিজের ফেসুবক পাতায় কুংফু কিংবদন্তি ব্রুস লির ছবির পাশাপাশি নিজের একটি ছবি পোস্ট করেন তিনি। ঐ ছবিটির শিরোনাম ছিল ‘পুরোনো ড্রাগন আর নতুন ড্রাগন।’

এতেই সাড়া পড়ে যায় ভার্চুয়াল জগতে এবং আব্বাস পেয়ে যান তারকা খ্যাতি। ছবিতে হলিউড কিংবদন্তির সাথে তার চেহারার অসম্ভব মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

অবশ্য মার্শাল আর্টের জন্য দীর্ঘ সংগ্রাম করতে হয়েছে আলী আব্বাসকে।

১৪ বছর বয়সে তিনি ব্রুস লি’র অ্যাকশন ছায়াছবির প্রতি আসক্ত হয়ে পড়েন এবং সমবয়সীদের মতো ব্রুস লি’র কুংফু কৌশল আয়ত্ত্ব করার চেষ্টা করেন। এজন্য মাস কয়েক কাবুলের স্পোর্টস ক্লাবে তিনি প্রশিক্ষণ নেন।

তবে এটা বেশি দিন চলেনি। কারণ তার পরিবার ক্লাবে প্রশিক্ষণের ব্যয় মেটাতে পারছিল না।

ওদিকে বাবা মোহাম্মদ রেজা হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর আব্বাস আলীজাদার পড়াশুনাও বন্ধ হয়ে যায়।শুরু হয় তার কঠোর জীবন সংগ্রাম।কিন্তু তিনি নিজের বাসার মধ্যেই কুংফু প্রশিক্ষণ চালিয়ে যেতে থাকেন।

fghan_bruce_lee_abbas_alizada
ব্রুস লি’র বিখ্যাত ভঙ্গিতে আব্বাস

সেই পথ ধরেই তিনি কাবুলের বিভিন্ন জায়গায় কুংফু শো করেছেন আব্বাস আলীজাদা।

কাবুলের দারুল আমান প্রাসাদের সামনেও তিনি ‘ফিস্ট অফ ফিউরি’ বা ‘ওয়ে অফ দা ড্রাগন’-এর মতো ব্রুস লির জনপ্রিয় ছবিগুলোর দৃশ্য তুলে ধরেছেন।

লোকে এখন তাকে ডাকে ‘আফগান ব্রুস লি’ নামে।

ব্রুস লির নামে চেহারার মিল নিয়ে আব্বাস জানালেন, কিছু লোকে তার জন্য গর্ব করে, আবার কেউ কেউ মনে করেন ছবিগুলো ফটোশপ দিয়ে বানানো ভুয়া ছবি।

তবে ব্রুস লি’র ব্যাপারে আফগানিস্তানে নতুন করে আগ্রহ সৃষ্টি করতে পেরে তিনি নিজেই গর্বিত।