সাবিনা ইয়াসমীনকে অপমান!

0
235

বিটিভির ৫০ বছর পূর্তিতে দেশের প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমীনকে নিয়ে নির্মিত একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার কথা বলেও শেষ মুহূর্তে অংশ নেননি সেরা কণ্ঠখ্যাত গায়ক ইমরান। তার এ আচরণে অপমানিত ও ক্ষুব্ধ হয়েছেন কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমীন।

এ প্রসঙ্গে সাবিনা বলেন, তার মতো একটা বাচ্চা ছেলের কাছ থেকে এ ধরনের আচরণ সত্যিই দুঃখজনক। আমি রীতিমতো অপমানিত ও ক্ষুব্ধ।

বিস্মিত সাবিনা বলেন, ইমরানের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ সত্যিই ক্ষমার অযোগ্য। গান গাইতে এসে অল্প কদিনেই যদি এমন আচরণ হয়, তাহলে তো তার ভবিষ্যৎ অন্ধকার দেখছি।

sabina yesmin
সাবিনা ইয়াসমিন-ফাইল ছবি

জনপ্রিয় এ কণ্ঠশিল্পী বলেন, একজন শিল্পীকে কেবল ভালো গান গাইলেই চলে না, মানুষ হিসেবেও ভালো হতে হয়। এমন কাণ্ডজ্ঞানহীন ও অপেশাদার আচরণ ইমরানের বড় শিল্পী হওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াবে।

একজন শিল্পীর জীবনে কমিটমেন্ট রক্ষা করাটা অনেক বেশি জরুরি বলেও মনে করেন তিনি।

জানা গেছে, বিটিভির সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে দেশের বিশিষ্ট শিল্পীদের নিয়ে ৭ দিনের অনুষ্ঠান নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে সাবিনা ইয়াসমীনের এই অনুষ্ঠান। ৬ ডিসেম্বর সাবিনা ইয়াসমীনকে নিয়ে নির্মিত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের ব্যাপারে ইমরান তার সম্মতি জানিয়েছিলেন।

কথা ছিল, সাবিনা ইয়াসমীনের একটি কালজয়ী দ্বৈত গানে কণ্ঠ দেবেন ঝিলিক ও ইমরান। ৯ তারিখ গানটি ধারণ করার তারিখও নির্ধারিত ছিল। যথাসময়ে ঝিলিক বিটিভির স্টুডিওতে হাজির হলেও একেবারে শেষ মুহূর্তে শারীরিক অসুস্থতার অজুহাত দেখিয়ে ইমরান সেখানে উপস্থিত হননি।

এই অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেননি ইমরান। তিনি বলেন, গানটি ধারণের দেড়-দুই ঘণ্টা আগে আমি বুঝতে পারি আমার কণ্ঠ গান গাওয়ার অবস্থায় নেই। আমি আমার অপারগতার কথা কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দিই। আমি তাদের অন্য একজন শিল্পীকে খুঁজে নেওয়ারও অনুরোধ করি।

ইমরান অবশ্য প্রথমে গান ধারণের এক দিন আগে অর্থাৎ ৮ ডিসেম্বর অপারগতা প্রকাশের কথা জানিয়েছিলেন। পরে আবার নিজে থেকেই ৯ ডিসেম্বরের কথা বলেন।

এদিকে সাবিনা ইয়াসমীনকে নিয়ে নির্মিত এ অনুষ্ঠানটির সমন্বয়কারী আরিফ খান জানান, ইমরান কথা দিয়ে কথা রাখেনি। তার অপেশাদার আচরণের কথা অনেকের কাছ থেকেই শুনেছি। এবার নিজেই সেই আচরণের শিকার হলাম।

এএসএ/